বাবরি মসজিদ ধ্বংসের বর্ষপূর্তি ঘিরে কড়া নিরাপত্তা

0
Ayodhya
ছবি: এএনআই থেকে

অযোধ্যা: সুপ্রিম কোর্টের রায় ঘোষণার মাসখানেকের মাথায় হাজির বাবরি মসজিদ ধ্বংসের ২৭তম বর্ষপূর্তি। ১৯৯২ সালের ৬ ডিসেম্বর ‘করসেবক’দের হাতে ভাঙা পড়ে এই মসজিদ।

উত্তরপ্রদেশ পুলিশের এক সিনিয়ক অফিসার জানিয়েছেন, দিনটির কথা মাথায় রেখে কড়া নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। গত ৯ নভেম্বর সুপ্রিম কোর্টে অযোধ্যার রাম জন্মভূমি-বাবরি মসজিদ শীর্ষক মামলার রায় ঘোষণার দিন ঠিক যে ভাবে পুরো পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করা হয়েছিল, আগামী শুক্রবারেও একই ধরনের নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

অতিরিক্ত ডিজি (আইনশৃঙ্খলা) পি ভি রামশাস্ত্রী জানিয়েছেন, গত ৯ নভেম্বরের নিরাপত্তা ব্যবস্থাই জারি থাকছে ওই দিনেও। অযোধ্যার এসএসপি আশিস তিওয়ারি জানান, গোটা জেলাকে চারটি ভাগে ভাগ করা হয়েছে। এগুলির মধ্যে থাকছে ১০ নিরাপত্তা সেক্টর এবং ১৪টি সাব-সেক্টর।

তিওয়ারি জানান, বিভাগের নেতৃত্বে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রয়েছেন, এবং সেক্টরগুলিতে একজন ডেপুটি পুলিশ সুপারের তত্ত্বাবধানে রয়েছে। সাব-সেক্টরগুলি এসএইচও পর্যায়ের পুলিশ কর্মকর্তারা দেখভাল করছেন। একই সঙ্গে তিনি বলেন, নিরবচ্ছিন্ন চেকিং চলছে।

তিওয়ারি বলেন, “সেখানে সশস্ত্র পুলিশ সদস্যদের পোস্টে প্রায় ৭৮টি বালির বস্তা রাখা হয়েছে। যান চলাচলও নিয়ন্ত্রণ করা হয়েছে। সংবেদনশীল এলাকায় ২৬৯টি পুলিশ পিকেট রয়েছে”। একই সঙ্গে তিনি জানান, গন্ডগোল পাকানোর অভিযোগে ৩০৫ জনকে আটক করা হয়েছে।

এর পাশাপাশি ৯টি কুইক রেসপন্স টিম নিয়োগ করা হয়েছে। জরুরিকালীন পরিস্থিতি মোকাবিলা করতে ওই টিমগুলিকে ব্যবহার করা হবে। পাশাপাশি পুলিশের অন্তর্ঘাত-বিরোধী দলও সজাগ থাকছে বলে জানানো হয়েছে।

পুলিশকর্তা বলেন, কোনো সন্দেহজনক কার্যকলাপ বা লোক সম্পর্কে অবিলম্বে পুলিশকে অবহিত করার জন্য জনগণের কাছে আবেদন করা হয়েছে। কোনো ধরনের গুজব না ছড়ানো এবং সৌহার্দ্য বজায় রাখার জন্যও আবেদন জানানো হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.