মামলায় জড়ালেন অপর্ণা সেন-রা

বিহারের মজফ্‌ফরপুর আদালতে দায়ের হল দেশদ্রোহিতা মামলা

0
Aparna Sen
ফাইল ছবি

ওয়েবডেস্ক: বাড়ছে গণপিটুনি, সমানে চলছে ‘জয় শ্রীরাম’-এর হুঙ্কার। দেশের প্রধান হিসাবে নরেন্দ্র মোদীর উদ্দেশে খোলা চিঠি লিখে অবিলম্বে এ সব বন্ধের ব্যবস্থা নেওয়ার আর্জি জানিয়েছিলেন ৪৯ জন বিশিষ্ট জন। তাঁদের মধ্যে ছিলেন শ্যাম বেনেগাল, আদুর গোপালকৃষ্ণন, কৌশিক সেন, অনুরাগ কাশ্যপ এবং অপর্ণা সেন-সহ বিশিষ্টজনেরা। তাঁদের বিরুদ্ধেই দেশদ্রোহিতার মামলা দায়ের হল বিহারের মজফ্‌ফরপুর আদালতে। আগামী সপ্তাহে মামলাটির শুনানি হতে পারে বলে জানা গিয়েছে।

জানা গিয়েছে, ওই মামলায় সাক্ষী দিতে যাঁদের ডাকা হয়েছে তাঁরাও কয়েক দিন ধরেই অসহিষ্ণুতা প্রসঙ্গেই পালট‌া চিঠি লিখেছেন। আদালত সূত্রে খবর, অপর্ণাদের বিরুদ্ধে মামলার সাক্ষী দিতে ডাকা হয়েছে কঙ্গনা রানাউত, বিবেক অগ্নিহোত্রীদের।

৪৯ জন বিদ্বজ্জনের চিঠির পালটা দিতেই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সমর্থনে শুক্রবার চিঠি পেশ করেছিলেন সরকারপন্থী ৬১ জন বিদ্বজ্জন। চিঠিতে স্বাক্ষর করেছেন অভিনেত্রী পার্নো মিত্র, কাঞ্চনা মৈত্র, পরিচালক মিলন ভৌমিক, অভিনেতা বিশ্বজিৎ চট্টোপাধ্যায়, পরিচালক মধুর ভাণ্ডারকর, বিবেক অগ্নিহোত্রী, লেখক ও গীতিকার প্রসূন যোশী, নৃত্যশিল্পী সোনাল মানসিং, পণ্ডিত বিশ্বমোহন ভট্টর-মতো ৬১ জন বিশিষ্ট ব্যক্তিরা।

প্রসঙ্গত, কেন্দ্রের বিজেপি সরকারের উদ্দেশে ‘ধর্মীয় অসহিষ্ণুতা’ নিয়ে চিঠি পাঠিয়েছিলেন অপর্ণারা। তবে তারও আগে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উদ্দেশেও জয় শ্রীরাম প্রসঙ্গে বার্তা দিয়েছিলেন তিনি।

মাস দেড়েক আগে একটি সর্বভারতীয় চ্যানেলে সাক্ষাৎকারে অর্পণা দাবি করেছিলেন, ‘গণতন্ত্রে জয় শ্রীরাম বা আল্লাহ-হু-আকবর বা জয় মা কালী ধ্বনি দেওয়ার অধিকার সকলের রয়েছে। কিন্তু মমতার প্রতিক্রিয়া নিয়েই আসল সমস্যা তৈরি হচ্ছে’। তাঁর কথায়,”বাংলার মুখ্যমন্ত্রী থাকলে হলে নিজের ব্যবহার ও মুখের উপরে নিয়ন্ত্রণ রাখায় অভ্যাস করতে হবে মমতাকে। ভাবনাচিন্তা করে তাঁর প্রতিক্রিয়া দেওয়া উচিত। মাথায় যা-ই আসতে বলে দিলাম, এটা করা উচিত নয়। ভোটারদের তাঁর বিরুদ্ধে ঠেলে দিচ্ছেন মমতা। নিজের কবর নিজেই খুঁড়ছেন”।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.