বেঙ্গালুরু : এআইএডিএমকে প্রধান শশীকলাকে পারাপ্পানা অগ্রহরা সেন্ট্রাল জেলে বিশেষ সুযোগসুবিধা দেওয়া হয়েছে, এ কথা স্বীকার করে নিলেন সেই কারা বিভাগের উচ্চপদস্থ কর্তারা। কর্নাটক বিধানসভার পাবলিক অ্যাকাউন্টস কমিটি (পিএসি)-র কাছে ডিআইজি রূপার আনা অভিযোগ ঠিক বলে মেনে নিলেন তাঁরা। বললেন, শশীকলা ছাড়া কোটি টাকার স্ট্যাম্পপেপার কেলেঙ্কারি মামলায় সাজাপ্রাপ্ত আবদুল করিম তেলগিকেও জেলের ভেতরে বিশেষ সুবিধে দেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি জেল আধিকারিকরা এটাও মেনে নিলেন, জেলের ভেতরে শশীকলা পাঁচ কামরার ফ্ল্যাটে বসবাস করছেন।

পিএসি সদস্যরা বলেন, কারাকর্তাদের এই স্বীকারোক্তির পর এই সম্পর্কে ডিআইজি ডি রূপার তৈরি রিপোর্টের যাবতীয় অভিযোগ কার্যত সত্য প্রমাণিত হয়ে গেল। কমিটি বিষয়টি নিয়ে তদন্তের নির্দেশ দিয়েছে। এই দুর্নীতির সঙ্গে ওই জেল আধিকারিকদের মধ্যে কারা কারা জড়িত তা-ও চিহ্নিত করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

তা ছাড়াও কমিটি বর্তমান এডিজিপি (কারা) এন এস মেঘারিক ও ডিআইজি এইচ এস রেভানাকেও এ ব্যাপারে বিশদ রিপোর্ট দিতে বলেছে। উল্লেখ্য এই দু’ জনকে সত্যনারায়ণ রাও ও রূপা মুদগিলের জায়গায় বহাল করা হয়।

আরও পড়ুন : বদলি করা হলেও শশীকলা নিয়ে নিজের রিপোর্টে অনড় ডিআইজি রূপা

এই কমিটির নেতৃত্বে রয়েছেন ভারতীয় জনতা পার্টির এমএলএ ও প্রাক্তন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আর অশোক। তিনিই কারা বিভাগের শীর্ষ কর্তাদের আগামী ১৫ দিনের মধ্যে তদন্তের রিপোর্ট জমা দেওয়ার নির্দেশ দেন।

প্রসঙ্গত, কারাগারের এই দুর্নীতির কথা সামনে আসে জুলাই মাসে, ডিআইজি ডি রূপা মুদগিল একটা রিপোর্ট পেশ করার পর। এই রিপোর্ট তিনি পাঠান স্বরাষ্ট্র সচিব ও অন্য চারটি দফতরে। রিপোর্টে অভিযোগ করা হয়েছিল, দু’ কোটি টাকা ঘুষ নিয়ে শশীকলার জন্য বিশেষ সুবিধের ব্যবস্থা করে দেন আইজিপি (কারা) এইচ এন সত্যনারায়ণ রাও। বলা হয়, শশীকলা যে ২ কোটি টাকা দিয়েছিলেন তার মধ্যে ১ কোটি টাকা ডিজি নিজে রাখেন, বাকি টাকা কারাগারের অন্যান্য কর্মীর মধ্যে ভাগ করে দেন। আর আয়ের সঙ্গে সংগতিহীন সম্পদ মামলায় চার বছর কারাবাসের সাজাপ্রাপ্ত শশীকলার জন্য বিলাসবহুল ব্যবস্থা করে দেওয়া হয়। রূপা তাঁর রিপোর্টে বলেছিলেন, শশীকলা প্রতিদিন বিশেষ ধরনের খাবার খান, তাঁর জন্য আলাদা রাঁধুনি রান্না করেন।

উল্লেখ্য, এই দুর্নীতির কথা মিডিয়ার সামনে আনার ফলে ডি রূপা মুদগিলকে কারা বিভাগ থেকে সরিয়ে ট্র্যাফিক বিভাগে বদলি করা হয়। কিন্তু তাতেও তাঁকে দমানো যায়নি। তিনি বলেন, নিজের তৈরি রিপোর্টের পক্ষেই কথা বলবেন তিনি।

1 মন্তব্য

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here