ওয়েবডেস্ক: গত ২০১৪ সালে প্রধানমন্ত্রীপদে বসার পর এই প্রথমবার মহরমের অনুষ্ঠানে উপস্থিত হলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। তিনি ইনদওরে মুসলমান সম্প্রদায়ের দাউদি ভোহরা গোষ্ঠীর একটি অনুষ্ঠানে যোগ দেন শুক্রবার। আগামী ২১ সেপ্টেম্বর মহরমের প্রাক-অনুষ্ঠান পালিত হল এ দিন। মোদীর ওই অনুষ্ঠানে উপস্থিতির কথা সরকারি ওয়েবসাইটেও তুলে ধরা হয়। কিন্তু সেখানে ‘আশারা’র শেষে ‘মুবারক’ শব্দটি জুড়ে দেওয়ায় ক্ষুব্ধ হয়েছে সম্প্রদায়ের একাংশ।

মহরম শোকের মাস হিসাবেই পালিত হয়। হজরত মহম্মদের নাতি ইমাম হুসেন কারবালা যুদ্ধে শহিদ হন। সেই ঘটনার স্মরণ করতেই মহরমের অনুষ্ঠান পালন করেন মুসলমান সম্প্রদায়। শিয়া সম্প্রদায়ের তরফে এই শব্দটি ব্যবহারের প্রতিবাদ করা হয়েছে। বলা হয়েছে, শোকের অনুষ্ঠান পালনে ‘মুবারক’ শব্দটি সরকারি ওয়েবসাইটে ব্যবহার করায় ধর্মীয় ভাবাবেগ লঙ্ঘন করা হয়েছে।


আরও পড়ুন: মুসলিম সম্প্রদায়ের অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে প্রধানমন্ত্রী বললেন ‘গুজরাতের জন্য প্রচুর অবদান আপনাদের’

এমনও বলা হয়েছে, এটা শুধু মাত্র ‘আশারা’ হওয়ার কথা। তার সঙ্গে ‘মুবারক’ জুড়ে দিয়ে মুসলমানদের বিশ্বাসে আঘাত করা হয়েছে। ইমাম হুসেনের শহিদ হওয়ার বিষয়টিকেই এই সময় শোকজ্ঞাপন করা হয়। এটাকে কেউ উদ্‌যাপন করেন না। কিন্তু ‘মুবারক’ শব্দটি খুশির অনুষ্ঠানেই ব্যবহৃত হয়। যেমন ‘ইদ মুবারক’ বা ‘দিওয়ালি মুবারক’ ইত্যাদি। তা ছাড়া নবির নাতির শহিদ হওয়াকে উপলক্ষ করে মুসলমান সম্প্রদায় কালো দিন হিসাবে পালন করে।

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন