ওয়েবডেস্ক: একেই বৃষ্টি নেই, তার ওপরে দোসর হিসেবে রয়েছে তীব্র তাপপ্রবাহ। এই দুয়ের জেরে তামিলনাড়ুর রাজধানী চেন্নাইয়ে জলসংকট তীব্র আকার ধারণ করেছে। যে চারটে জলাধার থেকে শহরে জল পরিষেবা করা হয়, সে সব কার্যত শুকিয়ে গিয়েছে।

এই হাহাকারকে সামাল দেওয়ার জন্য বিভিন্ন বাড়িতে সরবরাহ করা জল ৪০ শতাংশ পর্যন্ত কমানো হয়েছে। স্বাভাবিক নিয়মে প্রতি দিন চেন্নাই পুরসভা থেকে ৮০ কোটি লিটার জল সরবরাহ করা হয়, কিন্তু এখন সেটা কমিয়ে ৫২.৫ কোটি লিটার করা হয়েছে।

দুই সন্তান এবং স্বামীকে নিয়ে চেন্নাইয়ের বাসিন্দা পুনিতা। তাঁর চার সদস্যের পরিবারের জন্য প্রতি দু’দিন অন্তর অল্প জল পাচ্ছেন তিনি। তাঁর কথায়, “এই পরিস্থিতিতে ছেলেমেয়েদের স্কুলে পাঠাতে পারছি না। রাত ১টা -২টো নাগাদ জলের গাড়ি আসে। তখনই লাইন দিয়ে দাঁড়াতে হয়।

আরও পড়ুন জোর করে উবের থেকে নামিয়ে ‘মিস ইন্ডিয়া’কে হেনস্তার অভিযোগ, ধৃত ৭

জলের সংকট এতটাই তীব্র যে শহরের এক নামী রেস্তোরাঁয় মধ্যাহ্নভোজন এবং রাতের খাওয়ার পরিষেবা আপাতত স্থগিত রাখা হয়েছে। শুধুমাত্র চা-স্নাক্সের ওপরেই চলছে এই রেস্তোরাঁ। তবে জলের পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে রেস্তোরাঁর পরিষেবাও স্বাভাবিক হবে বলে জানানো হয়েছে।

জল সরবরাহ কার্যত না থাকায় বন্ধ হয়ে যেতে বসেছে আইটি অফিসগুলি। কর্মীদের ঘর থেকে কাজ করার নির্দেশ দেওয়া নিয়ে চিন্তাভবনা করা হচ্ছে। পাশাপাশি বন্ধ হওয়ার মুখে শহরের অত্যন্ত বিলাসবহুল হোটেলও। সব মিলিয়ে রাজস্থানের ছবি এখন চেন্নাই শহর জুড়ে।

এই পরিস্থিতিতে মানুষ তাকিয়ে একমাত্র বৃষ্টির দিকে। যদিও স্বাভাবিক নিয়মে এখন বিশেষ বৃষ্টি হওয়ার কথা নয় চেন্নাইয়ে। ভালো বৃষ্টির জন্য চেন্নাই তাকিয়ে থাকে অক্টোবর থেকে ডিসেম্বর পর্যন্ত।

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন