shirin mazari foreign minister
যাঁর মন্ত্রী হওয়াকে কেন্দ্র করে বিতর্ক তুঙ্গে। ছবি: সামাটিভি

ওয়েবডেস্ক: পাকিস্তানের গণতান্ত্রিক সরকারের কোনো প্রতিনিধিই আজ পর্যন্ত যেটা বলেননি সেটাই ১৯৯৯ সালে বলে দিয়েছিলেন শিরিন মাজারি। সেই শিরিন মাজারিকেই ইমরানের মন্ত্রিসভায় বিদেশমন্ত্রী করা হতে পারে, এই খবর চাউর হতেই তুঙ্গে পৌঁছেছে বিতর্ক।

১৯৯৯ সালে ডিফেন্স জার্নাল মাগাজিনে লিখতে গিয়ে ভারতের শহরগুলিতে পরমাণু হামলা চালানোর ব্যাপারে খুল্লামখুল্লা সওয়াল করেছিলেন মাজারি। তিনি বলেছিলেন, “ভারতের শহরাঞ্চলগুলিকেই লক্ষ করে পরমানু হামলা চালানো উচিত। পাকিস্তানের পরমাণু অস্ত্রের আওতায় দিল্লি এবং মুম্বই আসা উচিত।” তিনি আরও বলেন, “ভারতের পরমাণু কেন্দ্রগুলি যে হেতু শহরাঞ্চলের কাছেই তাই সেগুলিকে লক্ষ্য বানালেই অনেক ক্ষয়ক্ষতি করা সম্ভব।”

আরও পড়ুন সংখ্যায় করুণানিধি: এক দীর্ঘ জীবনের সংক্ষিপ্ত সফর

জানা গিয়েছে, শুধু ভারতই নয়, পশ্চিমী দুনিয়ার ব্যাপারেও চূড়ান্ত বিদ্বেষ পোষণ করেন পাকিস্তান তেহরিক-এ-ইনসাফের এই নেত্রী। তাই তাঁর মন্ত্রী হওয়ার খবর চাউর হতেই ইতিমধ্যেই ক্ষোভ তৈরি হচ্ছে এই সব দেশে।

জানা গিয়েছে, প্রথমে তাঁকে বিদেশমন্ত্রীর পদে ভাবা হলেও এখন তাঁকে প্রতিরক্ষামন্ত্রীর পদে ভাবা হচ্ছে। যদিও এই বাপারে স্থানীয় সংবাদমাধ্যমগুলিতে খবর চাউর হলেও দলের তরফ থেকে এখনও কিছু খোলসা করা হয়নি।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন