narendra modi and amit shah

ওয়েবডেস্ক: বিজেপি সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ শিবসেনা প্রধান উদ্ধব ঠাকরের সঙ্গে রুদ্ধদ্বার বৈঠকে কতটা বরফ গলাতে সফল হয়েছেন, তা এখনও স্পষ্ট নয়। তবে উদ্ধবের দাবি পূরণ হলে তিনি যে আগামী লোকসভা ভোটে বিজেপির সঙ্গে এনডিএ-গত ভাবেই লড়বেন, তার ইঙ্গিত মিলেছে। কিন্তু উদ্ধবের ছুড়ে দেওয়া শর্ত ‘মড়ার উপর খাড়ার ঘা’-এর মতোই ঠেকছে বিজেপির কাছে।

বছর ঘুরলেই লোকসভা ভোট। তারপরেই ২০১৯-এর অক্টোবর মাস নাগাদ হতে চলেছে মহারাষ্ট্রের বিধানসভা নির্বাচন। কিন্তু লোকসভায় জোটবদ্ধ ভাবে লড়াইয়ের আগে উদ্ধব বিজেপির উদ্দেশে ছুড়ে দিলেন বিধানসভা ভোটের শর্ত। মহারাষ্ট্র বিধানসভায় মোট আসন সংখ্যা ২৮৮টি। এর মধ্যে ২০১৪ বিধানসভা ভোটে শিবসেনা এবং বিজেপি জিতেছিল যথাক্রমে ১২২ ও ৬৩টি আসনে। সেই জায়গায় দাঁড়িয়ে শিবসেনা আগাম দাবি করে বসল ১৫২টি আসন। যা পরিসংখ্যানগত ভাবে ৫০ শতাংশেরও বেশি।

amit shah

এ ব্যাপারে শিবসেনা নেতৃত্ব আশঙ্কা প্রকাশ করে বলেছেন, যদি এমন হয় ২০১৯ লোকসভা নির্বাচনে শিবসেনা এনডিএ-তে থাকল এবং বিজেপির নেতৃত্বে এনডিএ ফের কেন্দ্রের ক্ষমতায় এল। তখন তারপরেই অনুষ্ঠিত রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচনে কেন্দ্রের সাফল্যকে প্রচারে নিয়ে এসে বিধানসভা শিবসেনাকে একক ভাবে লড়াইয়ের দিকে ঠেলে দেওয়াটা অস্বাভাবিক নয়। ফলে এখন থেকেই আগাম চিন্তাভাবনা করে এগোতে চায় শিবসেনা।

তবে শনিবার শিবসেনার এই শর্ত আরোপের বিষয়টি প্রকাশ্যে এলেও জানা গিয়েছে, অমিতের মুম্বই সফরের সময় মাতোশ্রী-তে বসেই উদ্ধব তাঁকে এই প্রস্তাব দিয়েছিলেন। সে সময় অমিত এই গুরুত্বপূর্ণ বিষয়টি নিয়ে বিজেপির উচ্চ নেতৃত্বের মধ্যে আলোচনার দরকার রয়েছে বলে কোনো রকমে সামাল দেন। অর্থাৎ, বেশ কয়েকটি সংবাদ মাধ্যমে শিবসেনা এনডিএ ছাড়ছে না বলে যে খবর ছড়ানো হচ্ছে, তা আদতে কতটা সত্য সেই প্ৰশ্নই উঠে এল।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here