cpim sitaram

ওয়েবডেস্ক: হায়দরাবাদে সিপিএমের ২২তম পার্টি কংগ্রেসে ঘটে গেল নজিরবিহীন ঘটনা। এই প্রথম দলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক পড়তে পারলেন না দলীয় রাজনৈতিক খসড়া প্রতিবেদন। একাংশের বিরোধিতার মুখে পড়ে সেই প্রতিবেদন পড়লেন প্রাক্তন সাধারণ সম্পাদক প্রকাশ কারাত। এই আবহেই তীব্র হয়ে উঠল ইয়েচুরির ইস্তফার জল্পনা।

আগামী ২০১৯ লোকসভা নির্বাছেন বিজেপিকে প্রতিহত করতে সিপিএম জাতীয় কংগ্রেসের সঙ্গে কোনো রকমের সমঝোতার পথে যাবে কি না, তেমন প্ৰশ্নেই উত্তাল বামপন্থার অন্দরমহল। ইয়েচুরি গোষ্ঠীর সঙ্গে কারাত গোষ্ঠীর চিরাচরিত দ্বন্দ্বে নতুন মাত্রা যোগ করেছে এই বিতর্ক। গত জানুয়ারিতে কেন্দ্রীয় কমিটির বৈঠকে ভোটাভুটির মাধ্যমে এই বিতর্কে সাময়িক দাঁড়ি টানতে হয়েছে সিপিএমকে। কিন্তু দেশব্যাপী নীচুতলার নেতা-কর্মীদের বক্তব্যকে মান্যতা না দিয়ে উপর থেকে নীতি চাপিয়ে দেওয়ার বিপক্ষে ইয়েচুরি। কিন্তু কংগ্রেস-সঙ্গ দেওয়া নিয়ে দ্বিধাবিভক্ত সিপিএমের টানাপোড়েন পৌঁছেছে তুঙ্গে।

পার্টি কংগ্রেস প্রতিবেদন পেশ করতে না পেরে চরম অপমানিত ইয়েচুরি যে এই বিতর্কে দলীয় পদ থেকে ইস্তফা পর্যন্ত দিতে পারেন, তেমন খবরও ঘুরে বেড়াচ্ছে হায়দরাবাদে।

আরও পড়ুন: কংগ্রেসের সঙ্গে দূরত্ব বজায় রাখাতেই সায় দিল সিপিএমের ভোটাভুটি

উল্লেক্য, গত ১৯ জানুয়ারি কলকাতায় অনুষ্ঠিত কেন্দ্রীয় কমিটির বৈঠকে টানা দু’দিন আলোচনার পরেও সমাধান সূত্র না পেয়ে কংগ্রেসের সঙ্গে সমঝোতা-বিতর্কে ইতি টানতে ভোটাভুটিতে যায় সিপিএম। সেখানেও ভোটের ফলে কারাত-পন্থীরা জয়ী হন।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here