BJP
প্রতীকী ছবি

ওয়েবডেস্ক: এর আগে একাধিক বার বর্তমান সরকারের বিরুদ্ধে তোপ দেগেছেন প্রাক্তন বিজেপি নেতা তথা বাজপেয়ী জমানার কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অরুণ শৌরি। ফের এক বার চাঁচাছোলা ভাষায় কেন্দ্রকে আক্রমণ করলেন তিনি। জানিয়ে দিলেন জরুরি অবস্থার থেকেও ভয়াবহ দেশের বর্তমান পরিস্থিতি।

১৯৭৫- ৭৭ পর্যন্ত ১৯ মাসের জন্য জরুরি অবস্থার কথা ঘোষণা করেছিলেন তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধী। কিন্তু শৌরির মতে, সেই জরুরি অবস্থার পরে ইন্দিরা দুঃখপ্রকাশ করেছিলেন। কিন্তু বর্তমান প্রধানমন্ত্রী সেই সব দুঃখপ্রকাশের ধার ধারেন না বলে মত তাঁর।

একটি অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখতে গিয়ে শৌরি বলেন, “নরেন্দ্র মোদী এবং ইন্দিরা গান্ধীর মধ্যে পার্থক্য হল, জরুরি অবস্থার ব্যাপারে ইন্দিরার অনুশোচনা হয়েছিল।” তিনি আরও বলেন, “তখন ১,৭৫,০০০ জনকে জেলে ঢোকানোর পরেও ইন্দিরার মনে হয়েছিল, এ বার থামা দরকার। কিন্তু এই সরকারের আমলে সে সব কিছু মনে হয় না।”

অরুণ শৌরি

সে বার জরুরি অবস্থা হয়েছিল ১৯ মাসের জন্য। কিন্তু এখন অঘোষিত জরুরি অবস্থা চলছে। বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানকে দখল করে নেওয়ার চেষ্টা হচ্ছে। পরিস্থিতি আরও জটিল বলে জানান শৌরি।

আরও পড়ুন মাথায় চড়ে না বসলেও রিজার্ভ ব্যাঙ্কের ঘাড়ে চেপে বসল মোদী সরকার!

বিজেপিকে হারানোর জন্য সব বিরোধীকে একজোট হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন শৌরি। একের বিরুদ্ধে এক প্রার্থী দিলেই বিজেপি হেরে যেতে পারে বলে মনে করেন তিনি। তাঁর কথায়, “জনপ্রিয়তার শীর্ষে থাকাকালীনও ৩১ শতাংশ ভোট পেয়েছিলেন মোদী। সুতরাং বিরোধীরা যদি একজোট হয়, তা হলে ৬৯ শতাংশ ভোট তো হচ্ছেই।”

নাম না করে অন্ধ্রপ্রদেশ, পশ্চিমবঙ্গ, তেলঙ্গানার প্রসঙ্গ টেনে এনে শৌরি বলেন, “যে রাজ্যে ক্ষমতায় আঞ্চলিক দলগুলি রয়েছে, সে রাজ্যে বিজেপির কার্যত কোনো অস্তিত্ব নেই। যে রাজ্যে কংগ্রেস শক্তিশালী, সে রাজ্যে কংগ্রেসকেই আমাদের সমর্থন করতে হবে।”

পরিবর্তন আনার জন্য মানুষকে সঙ্গে নিয়ে চলতে হবে বলে মন্তব্য করেন শৌরি।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here