train id card digilocker

লখনউ: কানে ছিল ইয়ার ফোন, গান শোনায় ছিল মগ্ন। হঠাৎই ধাক্কা দিয়ে গেল ছুটন্ত ট্রেন। প্রাণ গেল ছয় কিশোরের। দুর্ঘটনাটি ঘটেছে উত্তর প্রদেশের হাপুরে, রবিবার রাতে। এক জন গুরুতর আহত। তার চিকিৎসা চলছে হাসপাতালে। এদের বয়স ১৪ থেকে ১৬-এর মধ্যে।

রেল ও প্রত্যক্ষদর্শীদের সূত্রে জানা গিয়েছে, হাপুরের পিলখুয়ার কাছে সাদিকপুরায় অন্যমনস্ক ভাবে রেললাইন হেঁটে যাচ্ছিল ওই কিশোররা। এরা সবাই দিনমজুর, রঙের কাজ করে, কেউ কেউ জোগাড়ে। কাজের বরাত পেয়ে এরা সবাই হায়দরাবাদ যাচ্ছিল। গাজিয়াবাদ থেকে ট্রেন ধরার কথা ছিল। কিন্তু তারা ট্রেন ধরতে না পেরে মাঝরাতের পর পিলখুয়ায় ফিরছিল। তখনই ঘটে দুর্ঘটনা। এদের মধ্যে ছ’ জন – বিজয়, আকাশ, রাহুল, সমীর, আরিফ এবং সালিম ঘটনাস্থলেই মারা যায়। গুরুতর আহত অবস্থায় এক জনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। সে মৃত্যুর সঙ্গে লড়ছে। এর পরিচয় এখনও জানা যায়নি।

জানা গিয়েছে, এদের সকলেরই কানে ইয়ার ফোন ছিল, সবাই গান শুনছিল। তাই ট্রেনের বাঁশির আওয়াজ শুনতে পায়নি।

দুর্ঘটনার পরেই স্থানীয় মানুষজন রেললাইন অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখান। তাঁদের অভিযোগ, রাত্রিবেলায় গোটা এলাকায় খুব কম আলো থাকে। আর স্থানীয় বাসিন্দারাও শর্টকাট করার জন্য হামেশাই রেলপথ ব্যবহার করেন। প্রবীণ মানুষজন, এমনকি শিশুরাও রেলপথ টপকে স্কুলে যাতায়াত করে।

সাদিকপুরায় পরিস্থিতি সামাল দেওয়ার জন্য বিশাল পুলিশবাহিনী পাঠানো হয়েছে। হাপুরের জেলাশাসক ও পুলিশ সুপার দুর্ঘটনাস্থলে গিয়েছন।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here