সরকারি স্কুল-স্বাস্থ্যকেন্দ্রে গোরুর পাল ঢুকিয়ে অভিনব প্রতিবাদ

0

আলিগড়: খেতের ফসল নষ্ট করছে বলে প্রায় ৮০০ গোরুকে সরকারি বিদ্যালয় আর প্রাথমিক স্বাস্থ্য কেন্দ্রে আটকে রাখা হয়েছে। মঙ্গলবার ঘটনাটি ঘটেছে উত্তরপ্রদেশের আলিগড়ের। কৃষকরা নিজেদের ফসল আর খামার বাঁচাতে এই পথ অবলম্বন করেছেন।

সাধারণত খুব ঠাণ্ডার সময় কৃষকরা সারারাত মাঠেই কাটান। কারণ পশুরা যাতে খেতের ফসল বা খামার নষ্ট করতে না পারে তার জন্য পাহারা দেন।

এক জন কৃষক মথুরা প্রসাদ শর্মা বলেন, এই যে পশুদের অত্যাচারে খেতখামার সব নষ্ট হচ্ছে তার জন্য সরকার বা প্রশাসন কেউই নজর দেয় না। দায়িত্বও নেয় না।

অন্য এক জন কৃষক শ্যাম বিহারী বলেন, এই ভাবে রাত জাগতে জাগতে তাঁরা অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। সেই জন্যই তাঁরা সবাই মিলে ঠিক করেছেন পশুদের ধরে সরকারি স্বাস্থ্য কেন্দ্রে আটকে রাখবেন।

Shyamsundar

 cow

মূলত এটি করা হয়েছে সরকার-প্রশাসনের নজর কাড়ার জন্য। যাতে তারা কিছু ব্যবস্থা নেয়। যাই হোক পন্থা কাজে লেগেছে। ঘটনা জানতে পেরে পুলিশ সত্বর গাড়ি পাঠিয়ে গোরুগুলিকে গো-শালায় রাখতে পাঠায়।

আলিগড়ের প্রবীণ পুলিশ আধিকারিক অজয়কুমার সাহানি বলেন, কিন্তু তাতেও সমস্যা। পথে বাধা সৃষ্টি করে এক দল বিক্ষোভকারী। হোয়াটসঅ্যাপে কিছু মানুষ ভুয়ো খবর ছড়িয়ে মানুষকে উত্তেজিত করেছে। সেই মিথ্যা রটনায় বলা হয়েছে গোরুগুলিকে কষাই খানায় নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। উত্তেজত জনতা গাড়িতে আক্রমণ করে। তাঁদের মধ্যে চার জনকে আটক করা হয়েছে। এই ঘটনায় দু’টি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

আরও পড়ুন : দেদার বিকোচ্ছে তাজা ইঁদুর! দর কেজি প্রতি ২০০ টাকা

জেলা ম্যাজিস্ট্রেট চন্দ্রভূষণ সিংহ বলেন, গো-শালায় যাতে গোরুগুলির ঠিক মতো দেখভাল করা হয় তার জন্য যাবতীয় ব্যবস্থা করা হচ্ছে।

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন