mumbai flyover collapse
ছেলেকে হারিয়ে কাঁদছেন সিরাজ খান

মুম্বই: বছর ৬০-এর সিরাজ খানের বুকে এবং পিঠে চোট। সেই চোট লেগেছে তাঁর ছেলে জাহিদ খানের জন্য। সেই তার বাবাকে ধাক্কা দিয়েছিল।

এতটুকু পড়লে মনে হবে, নিশ্চয়ই সন্তানের হাতে বাবার নিগ্রহ হওয়ার ঘটনা। কিন্তু আসল ঘটনা ঠিক অন্য। সে ধাক্কা মেরে বাবাকে না সরিয়ে দিলে ছেলের মতো প্রাণ যেত বাবারও। হ্যাঁ, বাবাকে ও ভাবেই বাঁচিয়ে মৃত্যু হয়েছে ছেলে জাহিদের।

বৃহস্পতিবার ছত্রপতি শিবাজি স্টেশনের হিমালয় ফুটব্রিজ দিয়ে হাঁটছিলেন বাবা-ছেলে। তখনই ভেঙে পড়ার মতো পরিস্থিতির সৃষ্টি হয় ওই সেতুর। বিপদ বুঝতে পেরে আগেভাগেই বাবাকে সরিয়ে দেয় জাহিদ।

আরও পড়ুন: মা, ঠাকুমার পথ অনুসরণ করে এ বার কি কর্নাটক থেকে লড়বেন রাহুল?

ঘাটকোপার ওয়েস্টে সিরাজ খানদের পাড়ায় এখন শোকের ছায়া। এক প্রতিবেশীর কথায়, “জাহিদ ধাক্কা না দিলে মারা যেতেন সিরাজও। সিরাজ যেখানে পড়েছিলেন, তার থেকে একটু দূরে একটা পাথরের চাঁই পড়ে।”

শুক্রবার জাহিদের শেষকৃত্য সম্পন্ন করেন পরিবারের সদস্যরা। শেষ যাত্রায় উপস্থিত ছিলেন পাড়ার প্রায় শ-তিনেক লোক। কিন্তু কিছুতেই স্বাভাবিক হতে পারছেন না সিরাজ। খালি একটা কথাই বলে চলেছেন তিনি, “আমাদের ঘরের আলো নিভে গেল।”

ছেলের শেষকৃত্যের পরে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন সিরাজ। বুকে, পিঠে চোটগুলো বেশ গুরুতর। কিন্তু আশঙ্কাজনক কিছু নয়। হাসপাতালের চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, কিছু দিনের মধ্যেই তাঁকে বাড়ি পাঠিয়ে দেওয়া হবে।

কিন্তু তাঁর বাড়ি যে আর আগের মতো থাকবে না, সেটা ভালোই বুঝতে পারছেন সিরাজ খান।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here