ওয়েবডেস্ক: কংগ্রেসের একাধিক নীতি ও আদর্শগত বিচ্যুতির ্অভিযোগ তুলে বিজেপিতে যোগ দিলেন ইউপিএ চেয়ারপার্সন সোনিয়া গান্ধীর অত্যন্ত ‘কাছের লোক’ হিসাবে পরিচিত টম বড়াক্কান। বৃহস্পতিবার বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহের উপস্থিতিতে দলবদল করেন টম।

সোনিয়া গান্ধী কংগ্রেসের দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকেই টম ছিলেন তাঁর ছায়াসঙ্গী। সময়ের সঙ্গে তাল মিলিয়ে সোনিয়ার কংগ্রেসের জন্য একটি শক্তপোক্ত মিডিয়া টিম তৈরির নেপথ্যেও ছিলেন তিনি। কংগ্রেসের এক জন মুখপাত্র হিসাবে তাঁকে প্রকাশ্যে দেখা গেলেও সোনিয়ার রাজনৈতিক সিদ্ধান্ত গ্রহণে তিনি যে অগ্রণী ভূমিকা নিতেন, সে কথাও দিল্লির রাজনীতিতে সর্বজনবিদিত। এহেন নেতার দলবদল কংগ্রেস শিবিরে প্রভাব ফেলতেও পারে।

বিজেপিতে যোগ দেওয়ার পর টম বলেন, “যদি কোনো রাজনৈতিক দল দেশের বিরুদ্ধে অবস্থান নেয়, সেখানে আমার থাকার কোনো প্রশ্নই ওঠে না। সেনাবাহিনীর সাফল্য নিয়ে প্রশ্ন তোলা হলে আমার পক্ষে তা মেনে নেওয়া সম্ভব নয়”। সম্প্রতি বালাকোটে ভারতের এয়ার স্ট্রাইকের পর কেন্দ্রের শাসক-বিরোধী রাজনৈতিক দলের কাজিয়ার কথাই তুলে ধরতে চেয়েছেন তিনি।

বিজেপিতে যোগদান পর্বে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর একাধিক উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ডের বিস্তর প্রশংসা করেন টম। অন্য দিকে বিজেপির সুরেই টম বলেন, তিনি তাঁর জীবনের মূল্যবান সময় কংগ্রেসের জন্য দিয়েছেন। কিন্তু সেখানে এখন বংশের রাজনীতি অধিকার বিস্তার করেছে। কংগ্রেসে এখন স্বশ্রদ্ধাশীল মানুষের কোনও স্থান নেই বলেও মন্তব্য করেছেন তিনি।

[ আরও পড়ুন: তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে অর্জুন, এয়ার স্ট্রাইকে দলের অবস্থান থেকেই ক্ষোভের উৎপত্তি ]

উল্লেখ্য, প্রায় ২০ বছর সময় ধরে কংগ্রেসের কেন্দ্রীয় রাজনীতিতে গুরুত্বভূমিকা পালন করেছেন টম। তবে তাঁকে কখনোই নির্বাচনী রাজনীতিতে সক্রিয় ভাবে অংশ নিয়ে প্রার্থী হতে দেখা যায়নি।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here