মুম্বই : গায়ক অভিজিৎ ভট্টাচার্যকে সমর্থন করে নিজের টুইটার অ্যাকাউন্ট বন্ধ করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিলেন সোনু নিগম। নিজের সিদ্ধান্ত জানিয়ে বুধবার সকালে ১০টা ১৩ মিনিটে মোট ২৪টি টুইট করেন সোনু। তাতে সংবাদমাধ্যমকে তাঁর টুইটের স্ক্রিনশট নিয়ে নিতেও বলেছেন। কারণ তিনি টুইটার ডিলিট করে দিলে এগুলো আর পাওয়া যাবে না।

তিনি টুইটে বলেছেন, নিজেদের দৃষ্টিভঙ্গি তুলে ধরে সোশ্যাল মিডিয়ায় অভিজিৎ ভট্টাচার্য আর পরেশ রাওয়াল খুবই খারাপ ভাবে সমালোচিত হয়েছেন।

তিনি বলেছেন, অভিজিৎ টুইটে যে কথাগুলো বলেছেন তা ঠিক। আর এর প্রেক্ষিতে টুইটার কর্তৃপক্ষ তাঁর টুইটার অ্যাকাউন্ট বন্ধ করে দিতে পারে না। এতে বাক স্বাধীনতা ক্ষুন্ন হচ্ছে।

জহরলাল নেহেরু বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রীর বিরুদ্ধে করা অভিজিত-এর টুইটের সমর্থনে সোনু কথা বলেন। তাঁর মতে, অভিজিৎ-এর শব্দ প্রয়োগে ভুল থাকলেও বক্তব্য ঠিক। ওই ছাত্রী যে বিজেপির বিরুদ্ধে মধুচক্রের অভিযোগ এনেছে তা তাঁদের গোষ্ঠীর মধ্যে উত্তেজনা ছড়ানোর জন্য যথেষ্ট। সেটা কি দোষের নয়? তা হলে ওই ছাত্রীর অ্যাকাউন্ট কেন বন্ধ করছে না টুইটার।

আরও পড়ুন: ‘আপত্তিকর’ মন্তব্যের জেরে গায়ক অভিজিতের অ্যাকাউন্ট সাসপেন্ড করল টুইটার

এমনকি লেখক অরুন্ধতী রায়কে আক্রমণ করে বিজেপি সাংসদ পরেশ রাওয়ালের করা টুইটেও কোনো ভুল দেখতে পাননি সোনু।

আরও পড়ুন: পাথর-ছোড়া তরুণকে নয়, সেনার উচিত অরুন্ধতী রায়কে জিপে বেঁধে রাখা, বিতর্কিত মন্তব্য পরেশ রাওয়ালের

এর আগেও তিনি বিতর্কিত মন্তব্য করে খবরের শিরোনামে এসেছেন। গত মাসে তিনি মন্তব্য করেছিলেন, রোজ সকালে আজানের শব্দে তাঁর ঘুম ভাঙে। তাই মাইক বাজিয়ে আজান করা বন্ধ করে দেওয়া উচিত। তারপর মসজিদের সঙ্গে মন্দিরেও লাউড স্পিকার বন্ধ করার কথা বলেন তিনি। শেষে এক ইমামের ফতোয়ার প্রতিবাদে নেড়া হয়ে যান।

যাই হোক মঙ্গলবার সহশিল্পী অভিজিৎ-এর অ্যাকাউন্ট বন্ধ করে দেওয়ার প্রতিবাদে তাঁর নিজের অ্যাকাউন্ট বন্ধ করে দিতে চেয়ে আবারও শিরোনামে উঠে এলেন সোনু।

আরও পড়ুন: ইমামের ফতোয়াকে চ্যালেঞ্জ করে নিজের মাথা কামালেন সনু নিগম

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here