baby

যোধপুর: সদ্যোজাতের শরীরকে দু’ ভাগ করে ফেললেন এক জন পুরুষ নার্স। ঘটনা রাজস্থানের। শুক্রবার রাতে গ্রেফতার করা হয়েছে অমৃত লাল নামের ওই নার্সকে। অন্য এক নার্স ঝুঝার সিং এই অপরাধে অমৃতকে সাহায্যে করেছিল বলে অভিযোগ উঠেছে। আপাতত ঝুঝার ফেরার। এদের দু’জনের বিরুদ্ধে খুনের মামলা দায়ের করা হয়েছে।

অভিয়োগ, এঁরা চিকিৎসককে না ডেকে নিজেরাই মহিলাকে প্রসব করানো শুরু করেন। কিন্তু প্রসবের সময় সমস্যা আরও জটিল হয়। শিশুর অবস্থান জটিল হয়ে পড়ে। সেই সময় ছোট্টো নরম শরীর ধরে এমন টান দেন যে শরীর দুই খণ্ড হয়ে যায়। এমনকী শিশুর মাথা গর্ভের ভেতরেই রয়ে যায়। এই ঘটনার কথা কাউকে জানাননি ওই নার্সরা। উলটে বাড়ির লোকেদের মাহিলাকে যোধপুর হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দেয়। জানান, মহিলার অবস্থা সংকটজনক।

আরও পড়ুন – হানিমুন ডায়েরি: নিকের কীর্তির কথা ফাঁস প্রিয়াঙ্কার, দীপিকা-রণবীরের ভিডিওয় চোর-পুলিশ খেলার ইঙ্গিত

এর পর পরিবারের লোকেরা উমেদ হাসপাতালে পৌঁছলে সেখানে প্রসবের ব্যবস্থা করা হয়। সেখানে প্রসব করাতে গিয়ে চিকিৎসকরা অবাক হয়ে যান। মহিলা কেবল শিশুর মাথা আর নাড়ির জন্ম দিয়েছেন। ঘটনা জানতে পেরে মহিলার স্বামী রামগড় হাসপাতালের কর্মীদের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেন।

উমেদ হাসপাতালের সুপারিটেন্ডেন্ট ডাঃ রঞ্জনা দেশাই বলেন, মহিলা এখন সুস্থ। কোনো রকম সমস্যা নেই।

জয়সলমিরের চিফ মেডিক্যাল অ্যান্ড হেলথ অফিসার বলেন, সেই সময় ডা. নিখিল শর্মা কর্তব্যরত ছিলেন। তাঁকেই প্রসবের সময় ডাকা হয়নি। তাঁকে কর্তব্য থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। তিনি আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে ওই ঘটনার বিষয়ে রিপোর্ট জমা করবেন।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here