sputnik v vaccine

খবর অনলাইন ডেস্ক: আগামী সপ্তাহ থেকেই বাণিজ্যিক ভাবে বাজারজাত হতে চলেছে রাশিয়ার কোভিড টিকা (Covid vaccine) স্পুটনিক ভি (Sputnik V)। পর্যাপ্ত টিকার অভাবে অনেক রাজ্যে টিকাকরণ কর্মসূচিতে ব্যাঘাত সৃষ্টি হয়েছে। এমন পরিস্থিতিতে বৃহস্পতিবার কেন্দ্র জানায়, আগামী সপ্তাহ থেকেই স্পুটনিক ভি বাজারজাত করা হবে।

নীতি আয়োগের সদস্য (স্বাস্থ্য) ভিকে পল জানান, “আমরা আশাবাদী ‘স্পুটনিক ভি’ আগামী সপ্তাহে বাজারে পাওয়া যাবে। রাশিয়া থেকে যে সীমিত সংখ্যক টিকা ভারতে এসেছে, তার বিক্রি আগামী সপ্তাহে শুরু হবে”।

Loading videos...

তিনি আরও বলেন, “এই টিকার সরবরাহ অব্যাহত রাখার জন্য জুলাই থেকে ভারতেই শুরু হবে উৎপাদন। আনুমানিক ১৫.৬ কোটির মতো স্পুটনিক ভি তৈরি করার লক্ষ্যমাত্রা নেওয়া হয়েছে”।

প্রাথমিক ভাবে রাশিয়া থেকে দেড় লক্ষ ভ্যাকসিন পাঠানো হয়েছিল। কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অনুরাগ ঠাকুর গত রবিবার টুইট করে জানান, রাশিয়া থেকে স্পুটনিক ভি ভারতে এসে গিয়েছে। উৎপাদন বাড়ানোর জন্য আরডিআইএফ স্থানীয় ভারতীয় সংস্থাগুলির সঙ্গে চুক্তি করেছে”।

তবে ইতিমধ্যেই মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, নেদারল্যান্ডস, ইতালি, ফ্রান্স এবং রাশিয়ার একদল বিজ্ঞানী এই ভ্যাকসিনের তৃতীয় ধাপের গবেষণার ফলাফল নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছিলেন। বিশেষত তথ্যের বৈসাদৃশ্য, ট্রায়াল প্রোটোকল এবং তথ্যের যথার্থতা এবং গুণমান সম্পর্কে যে উপসংহারে পৌঁছানো হয়েছে, সে সব নিয়েই উদ্বেগ প্রকাশ করেছিলেন তাঁরা।

সমালোচনার মধ্যেই বিশ্বের প্রথম করোনা ভ্যাকসিন হিসেবে স্পুটনিক ভি-কে অনুমোদন দেয় রাশিয়া। সে দেশের প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন, তাঁর মেয়েও নিয়েছিলেন এই ভ্যাকসিন। এরপর ভারতের ডক্টর রেড্ডি’জ ল্যাবের সঙ্গে গাঁটছড়া বেঁধে এ দেশে স্পুটনিক ভি-র উৎপাদন করার পরিকল্পনা নেয় রাশিয়া।

প্রসঙ্গত, ভারতে এখন সেরাম ইনস্টিটিউটের কোভিশিল্ড এবং ভারত বায়োটেকের তৈরি কোভ্যাক্সিনে টিকাকরণ চলছে। এই দু’টিই ভারতীয় সংস্থার তৈরি কোভিড ভ্যাকসিন। সে দিক থেকে কোনো বিদেশি সংস্থার প্রথম এবং ভারতের বাজারে তৃতীয় টিকা হিসেবে ব্যবহৃত হবে স্পুটনিক ভি।

আরও পড়তে পারেন: কোভিড থেকে সুস্থ হয়ে ওঠার অন্তত ৬ মাস পর আক্রান্তদের টিকা দেওয়ার প্রস্তাব সরকারি প্যানেলের

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.