কলকাতা: শিক্ষক নিয়োগে দুর্নীতি নিয়ে উত্তাল রাজ্য। মঙ্গলবার এ বিষয়েই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে চিঠি দিলেন কেন্দ্রীয় শিক্ষামন্ত্রী ধর্মেন্দ্র প্রধান।

রাজ্যে শিক্ষক নিয়োগে দুর্নীতির অভিযোগ নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন কেন্দ্রীয় শিক্ষামন্ত্রী। পাশাপাশি, মানুষের মনে আস্থা ফেরাতে এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপের কথাও উল্লেখ করেছেন তিনি।

চিঠিতে কেন্দ্রীয় শিক্ষামন্ত্রী লেখেন, “শিক্ষকরা সমাজের অন্যতম স্তম্ভ। তাঁরাই শিশুদের জীবনের লক্ষ্য স্থির করে দেন, তাদের বিশ্বের সফল নাগরিক হিসেবে গড়ে তোলেন এবং জীবনে সফল হওয়ার জন্য অনুপ্রেরণা জোগান। তাই পশ্চিমবঙ্গে শিক্ষক নিয়োগে দুর্নীতি নিশ্চিত ভাবে শিক্ষার মানের ক্ষতি করবে এবং ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে হতাশ করবে”।

কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর চিঠি প্রসঙ্গে তৃণমূলের রাজ্য সাধারণ সম্পাদক কুণাল ঘোষের মন্তব্য, “ভবিষ্যতের প্রজন্মকে উৎসাহিত করবে বলেই তৃণমূল সরকার যা যা কাজ করেছে, তাতে সাধারণ মানুষ খুশি। অন্যায়টা অন্যায়ই। কিন্তু বিজেপি-শাসিত রাজ্যের কেলেংকারিগুলোকে যদি কেন্দ্রীয় শিক্ষামন্ত্রী ধামাচাপা দিতে চান, তা হলে বলতে হয়, এই সস্তা রাজনীতিতে তাঁর জড়ানো উচিত নয়”।

প্রসঙ্গত, এ দিনই দিল্লি গিয়ে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের সঙ্গে বৈঠক করেন রাজ্যের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী। জানা গিয়েছে, কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে একান্ত বৈঠকে পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের গ্রেফতারি ও এসএসসি দুর্নীতিকে হাতিয়ার করে কী ভাবে তৃণমূলকে বিড়ম্বনায় ফেলা যায়, সে সব পরিকল্পনা নিয়েও আলোচনা হয়েছে শুভেন্দুর। তার পরই মুখ্যমন্ত্রীকে ‘দিদি’ সম্বোধন করে কেন্দ্রীয় শিক্ষামন্ত্রীর এই চিঠি যথেষ্ট তাৎপর্যপূর্ণ বলেই মনে করছে রাজনৈতিক মহল।

আরও পড়তে পারেন:

রেশন ডিলারদের সঙ্গে নির্মম রসিকতা, দিল্লিতে প্রতিবাদে শামিল প্রধানমন্ত্রী মোদীর ভাই

অমিত শাহের কাছে তৃণমূলের ১০০ নেতার তালিকা পেশ শুভেন্দুর, নাম রয়েছে সাংসদ, বিধায়ক থেকে মন্ত্রীরও

ঝাড়খণ্ডের তিন বিধায়কের কাছ থেকে টাকা উদ্ধারের ঘটনায় তল্লাশি, বিকানির ভবনে তালা ভেঙে ঢুকল সিআইডি

স্বাস্থ্য দফতরে কর্মী নিয়োগে দুর্নীতির আশংকা, রাজ্যের রিপোর্ট চেয়ে সময়সীমা বাঁধল হাইকোর্ট

টাকা কার? বিস্ফোরক দাবি অর্পিতার

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন