নতুন ট্র্যাফিক আইন নিয়ে কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর তোপের মুখে খোদ বিজেপিশাসিত রাজ্যগুলি

0
nitin gadkari

ওয়েবডেস্ক: নতুন ট্র্যাফিক আইন নিয়ে চাপে পড়েছে বিজেপি। এক দিকে যখন বিজেপিশাসিত রাজ্যগুলিতেই জরিমানার অঙ্ক কমিয়ে ফেলা হচ্ছে, তখন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী নীতিন গড়করির হুঁশিয়ারি, ট্র্যাফিক আইন ভাঙার ক্ষেত্রে জরিমানা লঘু করার চেষ্টা হলে তার জন্য দায়ী থাকবে রাজ্যগুলিই।

এনডিটিভিকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে গড়করি বলেন, “যে সমস্ত রাজ্য জরিমানা বৃদ্ধিতে রাজি হয়নি, তাদের কাছে জানতে চাই, অর্থের থেকে জীবন কি মূল্যবান নয়? জীবন বাঁচাতেই এটা করা হয়েছে”।

নীতিন গড়করি বলেন, “আমি জীবন রক্ষা করার সঙ্কল্প করেছি। মানুষের জীবন বাঁচাতেই এটা করা হয়েছে। আমি রাজ্য সরকারগুলিরও সহযোগিতা চাই। এই ব্যাপারটা কেন্দ্র এবং রাজ্য সরকারের ঊর্ধ্বে হওয়া উচিত।” সেই সঙ্গে গড়করি যোগ করেন, “আইনের ভীতি থাকা উচিত মানুষের মধ্যে। নির্ভয়া-কাণ্ডের পর কেন মৃত্যুদণ্ডের ব্যাপারটি এসেছে? আইনের ভীতি তৈরি করার জন্যই তো।”

উল্লেখ্য, সপ্তাহখানেক আগেই নতুন ট্র্যাফিক আইন চালু হয়েছে। সেই সঙ্গে ট্র্যাফিক আইন ভাঙার ক্ষেত্রে জরিমানার অঙ্ক আকাশছোঁয়া হয়েছে। কাউকে কাউকে দেড় লক্ষ টাকা পর্যন্ত জরিমানা করা হয়েছে। এর ফলে বিভিন্ন মহলে সমালোচিতও হচ্ছে কেন্দ্রের এই নতুন নীতি। কিন্তু এই আইনের বিরুদ্ধে প্রথম পদক্ষেপ করছে বিজেপিশাসিত রাজ্যগুলিই।

মঙ্গলবার এই মর্মে প্রথম পদক্ষেপ করেছিল গুজরাত। নতুন কেন্দ্রীয় আইনে যে সব জরিমানার অঙ্ক ধার্য রয়েছে, সেগুলি গুজরাতে সংশোধন করা হয়েছে। জরিমানার অঙ্ক অনেকটা কমিয়ে দিয়েছে তারা। অন্য দিকে কর্নাটকের মুখ্যমন্ত্রী বিএস ইয়েদিউরাপ্পাও জানিয়েছেন, গুজরাতের সিদ্ধান্তের কপি হাতে পাওয়ার পর এই ব্যাপারে তিনিও পদক্ষেপ করতে পারেন।

আরও পড়ুন বিধানসভায় হাজির হয়ে চমকে দিলেন দেবশ্রী রায়!

অন্য দিকে মহারাষ্ট্রের বিজেপি-শিবসেবা সরকারও নতুন এই ট্র্যাফিক আইনকে নিন্দা করেছে। সংশোধিত এই আইন মহারাষ্ট্রে আপাতত লাগু হচ্ছে না বলে জানিয়েছে তারা। গোয়াও বলেছে, এই ব্যাপারে খুব শীঘ্রই সিদ্ধান্ত নেবে তারা।

ফলে সংশোধিত ট্র্যাফিক আইনের ব্যাপারে সব থেকে আগে বিজেপিশাসিত রাজ্যগুলিতেই মুখ পুড়েছে কেন্দ্রের। এর ফলে কেন্দ্র যে কিছুটা ব্যাকফুটে তা তো বলাই বাহুল্য। সেই পরিস্থিতি এড়াতেই সম্ভবত ছক্কা হাঁকানোর চেষ্টা করলেন গড়করি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here