প্রবল শক্তি নিয়ে ধেয়ে আসছে পশ্চিমী ঝঞ্ঝা, তত দিন আর শীত ফিরবে না

0

ওয়েবডেস্ক: এযাবৎ কালের সব থেকে শক্তিশালী পশ্চিমী ঝঞ্ঝাটি ধেয়ে আসছে উত্তর ভারতের দিকে। তার প্রভাব শুধুমাত্র উত্তর ভারতেই সীমাবদ্ধ থাকবে না, বরং মধ্য, পূর্ব আর উত্তরপূর্ব ভারতের কিছু অংশেও পড়তে পারে। আর যত দিন না সেই ঝঞ্ঝা কেটে যাচ্ছে, তত দিন দক্ষিণবঙ্গে শীত ফিরবে না।

শুক্রবারের থেকে শনিবার কলকাতায় অনেকটাই বেড়েছে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা। এ দিন শহরের সকালের তাপমাত্রা ছিল ১৮.৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস। অর্থাৎ বৃহস্পতিবারের (১৫.৯) থেকে এ দিন শহরে তাপমাত্রা বেড়ে গিয়েছে ২.৪ ডিগ্রি।

কলকাতার পাশাপাশি দক্ষিণবঙ্গের বিস্তীর্ণ অঞ্চলে আবার শীত উধাও হয়েছে। এ দিনও পুরুলিয়ার তাপমাত্রা ১২ ডিগ্রি থাকলেও শ্রীনিকেতনের তাপমাত্রা ১৫ ডিগ্রিতে উঠে গিয়েছে। পানাগড়ের তাপমাত্রা বেড়ে হয়েছে ১৪.৩। দু’ দিন আগে ১৩-এর ঘরে চলে যাওয়া দিঘার সর্বনিম্ন তাপমাত্রাও উঠে গিয়েছে ১৭ ডিগ্রির ঘরে।

আর এর পুরোটাই হয়েছে দক্ষিণবঙ্গের আকাশে মেঘ ঢুকে যাওয়ায়। এই মুহূর্তে বঙ্গোপসাগরে একটি বিপরীত ঘূর্ণাবর্ত রয়েছে। তার ফলে এই অঞ্চলের বায়ুমণ্ডলে সাগর থেকে জলীয় বাষ্প ঢুকে মেঘ তৈরি করছে। ফলে বাধাপ্রাপ্ত হয়েছে উত্তুরে হাওয়া। এ কারণেই পারদ বেড়ে গিয়েছে অনেকটাই।

কিন্তু বঙ্গোপসাগরের বিপরীত ঘূর্ণাবর্তটি বিদায় নিলেও, শীত পড়বে না দক্ষিণবঙ্গে। কারণ তত দিনে ওই পশ্চিমী ঝঞ্ঝাটি হানা দেবে উত্তর ভারতে।

পশ্চিমী ঝঞ্ঝা হল ভূমধ্যসাগরে তৈরি হওয়া নিম্নচাপ, যা শীতের মাসগুলিতে ইরান, আফগানিস্তান, পাকিস্তান হয়ে ভারতের দিকে ধেয়ে আসে। এই ঝঞ্ঝা এক দিক থেকে খুব উপকারী, কারণ এর প্রভাবেই বরফ পড়ে উত্তরের রাজ্য এবং কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলিতে। কিন্তু এ বার যে ঝঞ্ঝাটি আসছে সে অত্যন্ত শক্তিশালী।

ওই ঝঞ্ঝার প্রভাব শুধুমাত্র কাশ্মীর, লাদাখ, হিমাচল, উত্তরাখণ্ডেই সীমাবদ্ধ থাকবে না, বরং পঞ্জাব, হরিয়ানা, দিল্লি, উত্তরপ্রদেশে ভালোমতো পড়বে। এমনকি, এই ঝঞ্ঝার প্রভাবে রাজস্থান, মধ্যপ্রদেশ, বিহার, ঝাড়খণ্ডেও বৃষ্টি হতে পারে। এর পাশাপাশি ওই একই ঝঞ্ঝার জেরে সিকিম, উত্তরবঙ্গের সান্দাকফু অঞ্চল আর অরুণাচল প্রদেশেও তুষারপাত হতে পারে। পুরুলিয়া, বাঁকুড়ার দিকেও হালকা বৃষ্টির সম্ভাবনা উড়িয়ে দেওয়া যাচ্ছে না।

আরও পড়ুন হায়দরাদের পুনরাবৃত্তি রুখতে রাতভর শহর জুড়ে টহল কলকাতা পুলিশের

ফলে বোঝাই যাচ্ছে, কী বিশাল প্রভাব নিয়ে এই ঝঞ্ঝা আসতে চলেছে ভারতে। এমনিতে কম শক্তিশালী ঝঞ্ঝাতেও কাশ্মীর, লাদাখ, হিমাচল আর উত্তরাখণ্ডে তুষারপাত হয়, কিন্তু আসন্ন ঝঞ্ঝার প্রভাবে এই সব অঞ্চলে জীবনযাপন বিপর্যস্ত করে দেওয়ার মতো তুষারপাতের আশঙ্কা করা হচ্ছে।

বুধবার ১০ ডিসেম্বর থেকে রবিবার ১৫ ডিসেম্বর পর্যন্ত এই ঝঞ্ঝার প্রভাব থাকবে দেশে। তার পর ঝঞ্ঝা বিদায় নেবে, আর সেই সঙ্গেই জাঁকিয়ে শীত পড়তে পারে দক্ষিণবঙ্গে। ফলে আগামী এক সপ্তাহ দক্ষিণবঙ্গে তাপমাত্রা খুব একটা বেশি নামবে না।

------------------------------------------------
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.