Supreme Court
সুপ্রিম কোর্ট। প্রতীকী ছবি

নয়াদিল্লি: উত্তরপ্রদেশের হাথরসে বছর কুড়ির তরুণীর ধর্ষণ এবং খুনের ঘটনায় সাক্ষীদের কী ভাবে সুরক্ষা দেওয়া হচ্ছে, সে বিষয়ে উত্তরপ্রদেশ সরকারকে একটি হলফনামা দাখিল করতে বলল সুপ্রিম কোর্ট।

হাথরসকাণ্ডের তদন্তে একজন বর্তমান বা অবসরপ্রাপ্ত সুপ্রিম কোর্ট বা হাইকোর্টের বিচারকের নেতৃত্বে নজরদারি এবং উত্তরপ্রদেশ থেকে মামলাটি দিল্লিতে স্থানান্তর করার আবেদন জানানো জনস্বার্থ মামলাটির শুনানি করে শীর্ষ আদালত।

জনস্বার্থ মামলাটি দায়ের করেছিলেন দিল্লির বাসিন্দা, সমাজকর্মী সত্যম দুবে এবং কয়েকজন আইনজীবী। আবেদনে বলা হয়েছে, “উত্তরপ্রদেশে মামলাটির তদন্ত এবং বিচার নিরপেক্ষ ভাবে হওয়া সম্ভব নয়”।

এই আবেদনের শুনানিতে শীর্ষ আদালত বলে, হাথরস ধর্ষণ মামলার তদন্ত যে সুষ্ঠু ভাবে পরিচালিত হবে, সে বিষয়টি উত্তরপ্রদেশ সরকারকে নিশ্চিত করতে হবে। তদন্তে যাতে কোনো রকমের প্রভাব না পড়ে, সে দিকে তাকিয়েই সরকারকে সাক্ষীদের সুরক্ষা সম্পর্কিত একটি হলফনামা দাখিল করতে বলা হয়েছে।

উত্তরপ্রদেশ সরকার জানিয়েছে, সাক্ষী সুরক্ষার বিষয়ে বৃহস্পতিবার একটি হলফনামা দাখিল করা হবে।

এ বিষয়ে উত্তরপ্রদেশ সরকারকে এলাহাবাদ হাইকোর্টের পর্যবেক্ষণের উপর নজর রাখতে বলে শীৰ্ষ আদালত। বিষয়টিকে “আরও বিস্তৃত ও প্রাসঙ্গিক” করতে হবে। অন্য দিকে, সরকারি ভাবে দাবি করা হয়, তারা হাথরস মামলার তদন্তে ইতিমধ্যেই সিবিআই তদন্তের সুপারিশ করেছে।

উত্তরপ্রদেশ সরকারের হয়ে প্রতিনিধিত্বকারী সলিসিটর জেনারেল তুষার মেহতা বলেন, শীর্ষ আদালত হলফনামা চেয়েছে, এটা ঠিক আছে। তবে হাথরসকাণ্ড নিয়ে কিছু স্বার্থান্বেষী উদ্দেশ্যপ্রণোদিত ভাবে মিথ্যা প্রচার চালিয়ে যাচ্ছেন। যে কারণে রাজ্য সরকার সিবিআই তদন্ত চেয়েছে।

শীর্ষ আদালত আইনজীবীদের উদ্দেশে স্পষ্টতই জানিয়ে দেয়, “এটি একটি ভয়াবহ ঘটনা, আমরা আদালতে পুনরাবৃত্তিমূলক যুক্তি চাই না”।

প্রসঙ্গত, হাথরসকাণ্ডে সিবিআই তদন্তের সুপারিশ করে সুপ্রিম কোর্টে একটি আবেদন দাখিল করেছে উত্তরপ্রদেশ সরকার। তবে তার আগেই দাখিল হওয়া জনস্বার্থ মামলাটির শুনানি হয় এ দিন।

আরও পড়তে পারেন: ‘সরকারের বিরুদ্ধে মিথ্যে বলার জন্য মৃতের পরিবারকে ৫০ লক্ষের টোপ’, এফআইআরে আজব দাবি উত্তরপ্রদেশ পুলিশের

dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন