কর্নাটক সরকারের আর্জি মেনে কাবেরী জলবণ্টন সমস্যায় নিজেদের দেওয়া নির্দেশের কিছুটা পরিবর্তন করল শীর্ষ আদালত। সোমবার আগের দেওয়া নির্দেশ পরিবর্তন করে সুপ্রিম কোর্ট জানিয়েছে আর ১৫ হাজার কিউসেক নয়, আগামী ২০ তারিখ পর্যন্ত ১২ হাজার কিউসেক হারে জল ছাড়তে হবে কর্নাটককে। কিন্তু এই নির্দেশও কর্নাটক মানবে কি না, সে ব্যাপারে প্রশ্ন চিহ্ন থেকেই যাচ্ছে।

গত ৫ সেপ্টেম্বর শীর্ষ আদালত নির্দেশ দেয় তামিলনাড়ুর জন্য ১৫ হাজার কিউসেক হারে কাবেরীর জল ছাড়তে হবে কর্নাটককে। কিন্তু ১৫ হাজার নয়, গত ৬ সেপ্টেম্বর রাত থেকে ১০ হাজার কিউসেক হারে জল ছাড়ে কর্নাটক। পাশাপাশি নিজেদের রাজ্যে জলের পরিমাণ যে সত্যিই খুব কম এ কথা জানিয়ে কর্নাটক সরকার শীর্ষ আদালতের নির্দেশ পরিবর্তনের আর্জি জানায়। তাদের দাবি ছিল ১৫ হাজারের বদলে ১০ হাজার কিউসেক জল ছাড়ার নির্দেশ দিক আদালত। সোমবার সেই আর্জির শুনানিতে রায় পরিবর্তন করে আদালত।

অন্যদিকে কর্নাটক আর তামিলনাড়ুতে কাবেরীর জল নিয়ে হিংসা অব্যাহত। সোমবার সকাল থেকে বেঙ্গালুরু, মহীশুর-সহ দক্ষিণ কর্নাটকের বেশ কিছু জায়গা থেকে হিংসার খবর আসছে। রোষের মুখে পড়েছে তামিলনাড়ুর গাড়ি-ট্রাকগুলি। বেঙ্গালুরু আর মহীশুরে তামিলনাড়ু রেজিস্ট্রেশনের দুটি গাড়ি পুড়িয়ে দিয়েছে উত্তেজিত জনতা। একটি ট্রাকও পুড়িয়ে দেওয়ার খবর এসেছে। বেঙ্গালুরুর বিভিন্ন প্রান্তে বিক্ষোভের জেরে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে মেট্রো চলাচল। পরিস্থিতি সামাল দিতে বেঙ্গালুরু আর মহীশুরের বিভিন্ন অংশে কারফিউ জারি করেছে প্রশাসন।

রবিবার বেঙ্গালুরুনিবাসী এক তামিল ছাত্রকে মারধর করে একদল লোক। তামিলনাড়ুর সমর্থনে নিজের ফেসবুকে পোস্ট করেছিলেন ওই যুবক। অন্যদিকে সোমবার সকালে চেন্নাইয়ে এক কন্নড় ব্যবসায়ীর হোটেলে পেট্রোল বোমা ছোড়া হয়েছে। বোমা ছোড়ার ফলে হোটেলের জানলার কাচ ভেঙে যায়। ঘটনায় কেউ হতাহত না হলেও, হোটেলের নিরাপত্তারক্ষীরা একটি চিঠি উদ্ধার করে যেখানে লেখা ছিল, “কর্নাটকে তামিল মানুষরা যদি আক্রান্ত হন, তাহলে এখানে কন্নড়রা আক্রান্ত হবেন। কন্নড় মানুষরা সাবধান”।

কাবেরী জলবণ্টন সমস্যায় যে ভাবে দুই রাজ্যেই ক্রমশ বেড়ে চলেছে হিংসা, তাতে চিন্তায় প্রশাসন।    

 দেখুন বেঙ্গালুরুতে দিনব্যাপী চলা হিংসার কিছু ছবি।

bang-1

bang-2

bang-3

bang-4

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here