supreme court
সুপ্রিম কোর্ট। ফাইল ছবি।

ওয়েবডেস্ক: কয়েক মাস আগেই ভোটযন্ত্রের স্বচ্ছতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিল তৃণমূল কংগ্রেস। দলের তরফে দাবি করা হয়েছিল, ইভিএমের পরিবর্তে ব্যালট পেপারে ভোটগ্রহণ করা হোক। একই ভাবে উত্তরপ্রদেশের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী তথা সমাজবাদী পার্টি নেতা অখিলেশ যাদবও সে রাজ্যের পুরসভা নির্বাচনের পর একই দাবি তুলেছিলেন। সম্প্রতি ‘ন্যায় ভূমি’ নামে একটি অ-সরকারি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার তরফে সুপ্রিম কোর্টে জনস্বার্থ মামলা দায়ের করা হয়েছিল। বৃহস্পতিবার সেই মামলা প্রসঙ্গেই মত জানালেন দেশের প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ।

এ দিন প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈর নেতৃত্বাধীন একটি বেঞ্চে ওই আবেদন ওঠে। বেঞ্চ ওই সংগঠনের দাবির সঙ্গে এক মত হতে পারেনি। ইলেক্ট্রনিক ভোটিং মেশিন বা ইভিএমের অপব্যবহার নিয়ে যে ধরনের যুক্তি সর্বোচ্চ আদালতের কাছে পেশ করা হয়েছিল, তার মান্যতা মেলেনি এ দিন। যে কারণে নির্বাচন নিরপেক্ষ এবং সুষ্ঠু ভাবে সারতে ইভিএমের প্রয়োজনীয়তায় সিলমোহর পড়ল বলেই ধরে নেওয়া যেতে পারে।

স্বাভাবিক ভাবেই ওই আবেদন ফিরিয়ে দেয় বেঞ্চ। পাশাপাশি সুপ্রিম কোর্টের ওই বেঞ্চ জানায়, “প্রতিটি মেশিনেরই অপব্যবহারের আশঙ্কা থেকে যায়। ফলে সন্দেহ সব জায়গাতেই রয়েছে”।


আরও পড়ুন: আগামী ছ’মাসের মধ্যে দেশ থেকে গায়েব হয়ে যাবে ৬ কোটির বেশি মোবাইল সিমকার্ড


উল্লেখ্য, গত আগস্টের শুরুতে নয়াদিল্লি গিয়েছিলেন মমতা। সেখানে তাঁর সাক্ষাৎ হয় জেডি (‌এস)‌ নেতা এইচ ডি দেবগৌড়ার সঙ্গে। বৈঠকের পর দেবগৌড়া জানিয়েছিলেন, ‘”মমতার এক বিশেষ ক্যারিশমা আছে। লড়াইয়ের মানসিকতায় অন্যদের তুলনায় অনেকটাই এগিয়ে রয়েছেন তিনি। আগে অন্যরা বললেও মমতাই ইভিএমের পরিবর্তে ব্যালট ফিরিয়ে আনার দাবি নিয়ে নির্বাচন কমিশনে যাওয়ার কথা বলেছেন”। একই সঙ্গে জানা গিয়েছিল, মমতার পরামর্শ অনুযায়ী ২০১৯ লোকসভা নির্বাচনে ব্যালট পেপার ফিরিয়ে আনার জন্য দাবিপত্র তৈরির কাজ চলছে। সেই খসড়া দাবিপত্রে পূর্ণ সম্মতি জানিয়েছে গোটা দেশের ১৮টি রাজনৈতিক দল।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here