দায়দায়িত্ব নেই! ওয়েব পোর্টালগুলোকে তুলোধনা করল সুপ্রিম কোর্ট

0
Supreme Court
সুপ্রিম কোর্ট। প্রতীকী ছবি

নয়াদিল্লি: “শুধুমাত্র শক্তিশালী কণ্ঠস্বর শুনতে পায়” ওয়েব পোর্টালগুলো। বিচারক বা প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে “যা খুশি লিখে দিতে পারে”। গত বছর দিল্লিতে তবলিঘি জামাতের সমাবেশ সংক্রান্ত একটি মামলার শুনানিতে এমনই মন্তব্য করল সুপ্রিম কোর্ট।

রিপোর্টে সাম্প্রদায়িক সুর!

করোনাভাইরাস মহামারির প্রথম দিকে সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার জন্য অভিযোগের আঙুল তোলা হয় তবলিঘি জামাতের ওই সমাবেশের দিকে। এ বিষয়ে তীব্র মন্তব্য করে সর্বোচ্চ আদালত বলে, “বেশ কিছু সংবাদ মাধ্যমের প্রকাশিত প্রতিবেদনে সাম্প্রদায়িক সুর ছিল। যা থেকে দেশের বদনাম হতে পারে”।

ইউটিউব, ফেসবুক এবং টুইটারের নাম উল্লেখ করে সুপ্রিম কোর্ট বলেছে, “ওয়েব পোর্টালগুলোর কোনো দায়দায়িত্ব নেই”।

প্রধান বিচারপতি এনভি রমন্না বলেন, “সমস্যা হল, মিডিয়ার একাংশের মাধ্যমে এই দেশের সবকিছুকেই সাম্প্রদায়িক দৃষ্টিকোণ দিয়ে দেখানো হয়। এটাই সমস্যা। যার ফলে শেষ পর্যন্ত দেশে বদনাম হতে পারে”। ওয়েবসাইট এবং টিভি চ্যানেলের জন্য নিয়ন্ত্রণ প্রক্রিয়া সম্পর্কে সরকারের কাছে জানতে চান তিনি।

সরকারের প্রতিনিধিত্বকারী সলিসিটর জেনারেল তুষার মেহতা বলেন, “শুধু সাম্প্রদায়িক নয়, গল্পও বোনা হয়েছে। এই পোর্টালগুলি ভুয়ো খবরও ছড়িয়ে দিতে পারে।”

রাজধানীর মারকাজ নিজামুদ্দিনে তবলিঘি জামাতের সমাবেশের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট “কোভিডের সাম্প্রদায়িকীকরণ” সংক্রান্ত মিডিয়া রিপোর্টের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার অনুরোধ জানিয়ে একটি আবেদনের শুনানি করছে সুপ্রিম কোর্ট।

কোনো দায়দায়িত্ব নেই

বিভিন্ন ওয়েবসাইটে প্রচারিত এ ধরনের প্রতিবেদনের তীব্র সমালোচনা করেন সর্বোচ্চ আদালতের বিচারপতিরা। আদালত বলেছে, “ওয়েব পোর্টালগুলি শুধুমাত্র শক্তিশালী কণ্ঠস্বর শুনতে পায় এবং বিচারক, প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে কোনো দায়দায়িত্ব ছাড়াই কিছু লিখে দিতে পারে। ওয়েব পোর্টাল শুধুমাত্র ক্ষমতাবান মানুষদের নিয়ে চিন্তা করে, বিচারক, প্রতিষ্ঠান বা সাধারণ মানুষ তাদের ধর্তব্যের মধ্যে পড়ে না। এটা আমাদের অভিজ্ঞতা”।‌

খোদ প্রধান বিচারপতি বলেন, “ব্যক্তি ভুলে যান। ওয়েব পোর্টালগুলো প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে দুর্ভাগ্যজনক ভাবে লিখে দেয়”।

তিনি আরও বলেন, পোর্টালগুলির কোনো জবাবদিহিতা নেই এবং “আমাদের কথার প্রতিক্রিয়া কখনোই দেয় না”।

সব মিলিয়ে সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম এবং ওয়েবসাইটে ভুয়ো খবর নিয়ে সুপ্রিম কোর্ট গুরুতর উদ্বেগ প্রকাশ করেছে। এ ব্যাপারে ন্যাশনাল ব্রডকাস্টিং স্ট্যান্ডার্ডস অথরিটির পদক্ষেপ নেওয়া উচিত বলে মনে করেন প্রধান বিচারপতি।

জানা যায়, দিল্লিতে তবলিঘি জামাতের জমায়েত ‘থেকেও’ করোনা ছড়িয়েছে। এর ফলে রাজধানীর ‘অনেকেই’ আক্রান্ত হয়েছেন। সংসদে এমনই ব্যাখ্যা দিয়েছিল কেন্দ্র।

খবর অনলাইন-এ আজকের আরও কিছু গুরুত্বপূর্ণ খবর পড়ুন এখানে:

আচমকা অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভরতি মুকুল রায়

রাজ্যসভার প্রাক্তন সাংসদ তথা সাংবাদিক চন্দন মিত্র প্রয়াত

কেরলের বাইরে বাকি দেশে গত বৃহস্পতিবারের তুলনায় সংক্রমণ কমল ২.৯২ শতাংশ

এ বার গোরুকে জাতীয় পশু করার পক্ষে সওয়াল করল এলাহাবাদ হাইকোর্ট

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন