Supreme court
ফাইল ছবি

নয়াদিল্লি: ভিমা কোরেগাঁওয়ে হিংসাত্মক ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে ধৃত পাঁচ সমাজকর্মীর গৃহবন্দির মেয়াদ বাড়াল সুপ্রিম কোর্ট। সর্বোচ্চ আদালত বৃহস্পতিবার জানায়, আগামী ১২ সেপ্টেম্বর পরবর্তী শুনানির দিন পর্যন্ত তাঁরা গৃহবন্দি হিসাবেই থাকবেন। উল্লেখ্য, সপ্তাহখানেক আগে গত ২৯ আগস্টের শুনানিতেও আদালত জানিয়েছিল,পুলিশ কোনো মতেই নিজেদের হেফাজতে নিতে পারবে না ভারভারা রাও-সহ ধৃত পাঁচ অভিযুক্তকে।

পাশাপাশি প্রধান বিচারপতি দীপককুমার মিশ্র এবং বিচারপতি ডি ওয়াই চন্দ্রচূড় ও এম এল খানইউলকরের বেঞ্চ এ দিন পুণে পুলিশের অধিকার লঙ্ঘনের প্রসঙ্গ উত্থাপন করে। বিচারপতি চন্দ্রচূড় বলেন, “আমি শুনেছি পুণে পুলিশের এসিপি বলেছেন, এ বিষয়ে সুপ্রিম কোর্ট হস্তক্ষেপ করতে পারে না। বলে রাখা ভালো এই ধরনের বক্তব্য পেশের অধিকার তাঁর নেই”।


আরও পড়ুন: সমাজকর্মী গ্রেফতারে পুলিশকে তুলোধোনা বম্বে হাইকোর্টের

গত ২৭ আগস্ট হায়দরাবাদ থেকে সমাজকর্মী-কবি ভারভারা রাও, দিল্লি থেকে গৌতম নবলখা, থানে থেকে অরুণ ফেরেইরা, মুম্বই থেকে ভার্নন গঞ্জালভেজ ও ফরিদাবাদ থেকে মানবাধিকার আইনজীবী সুধা ভরদ্বাজকে গ্রেফতার করে পুণে পুলিশ। মহারাষ্ট্রের ভিমা কোরেগাঁওয়ে গত ১ জানুয়ারির হিংসাত্মক ঘটনায় জড়িত থাকার পাশাপাশি তাঁদের বিরুদ্ধে মাওবাদী কর্মকাণ্ডের যুক্ত থাকার প্রমাণ পাওয়া গিয়েছে বলে পুলিশের তরফে দাবি করা হয়েছে। কিন্তু দেশের বিভিন্ন জায়গা থেকে ওই সমাজকর্মীদের যে আইনের বলে পুণে পুলিশ গ্রেফতার করে সেটিকে একটি বিতর্কিত আইন বলেই মনে করেন আইনজ্ঞরা। তবুও পুলিশের ওই গ্রেফতারির পর সারা দেশ জুড়েই প্রবল সমালোচনার সৃষ্টি হয়। শুধু মাত্র বাম মনোভাবাপন্ন নয়, সমাজের বিভিন্ন স্তরের মানুষই এমন গ্রেফতারির প্রতিবাদ জানান নিজের মতো করে।

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন