supreme-court

ওয়েবডেস্ক: ফরেন কন্ট্রিবিউশন রেগুলেশন অ্যাক্ট বা এফসিআরএ-১৯৭৬ আইনের সংশোধনীকে চ্যালেঞ্জ করে আবেদন জমা পড়েছিল সুপ্রিম কোর্টে। জনস্বার্থ মামলাটিতে দাবি করা হয়, এই সংশোধনীকে ব্যবহার করে বিজেপি এবং কংগ্রেস অনাবাসী ভারতীয় শিল্পপতিদের কাছ থেকে দলীয় তহবিলে প্রাপ্ত অনুদানকে আড়াল করতে চাইছে। আইনের সংশোধনীর মধ্যেই লুকিয়ে রয়েছে ওই দুই রাজনৈতিক দলের স্বার্থ।

স্বেচ্ছাসেবী গণতান্ত্রিক অধিকার রক্ষা (এডিআর) নামের একটি সংস্থার পক্ষে আইনজীবী প্রশান্ত ভূষণের আবেদনটি সুপ্রিম কোর্টে দাখিল করেছিলেন আইনজীবী নেহা রাঠি। সোমবার প্রধান বিচারপতি দীপককুমার মিশ্রের বেঞ্চ কেন্দ্রীয় সরকারকে নির্দেশ দেয়, এই সংশোধনীকে জারি রাখার জন্য জবাবি পত্র দাখিল করতে হবে।

২৪ শে মার্চ, ২০১৪ তারিখে ওই সংশোধনী গৃহীত হয়েছিল। তখন অর্থ বিলের অংশ হিসাবেই সংশোধনীটি পাশ করানো হয়েছিল। কিন্তু সেই সংশোধিত আইনের বিরোধিতা করে এডিআর দিল্লি হাইকোর্টে মামলা ঠুকে দেয়। দিল্লি হাইকোর্ট এ ব্য‌াপারে সরকারের কাছে জবাবদিহি তলব করে। দেখা যায়, ২০০৪ থেকে ২০১০ সালের মধ্য‌ে কংগ্রেস ও বিজেপি – ভারতীয় রাজনীতির দুই মহীরুহ দলই বেদান্ত নামক বিদেশে নখিভুক্ত সংস্থার কাছে চাঁদা নিয়েছে। আইন অনুযায়ী, দু’ দলই এ ক্ষেত্রে শাস্তি পাওয়ার যোগ্য‌ বলে বিবেচিত হবে। এফসিআরএ ১৯৭৬ আইন অনুযায়ী রাজনৈতিক দলের অনুদান হিসাবে প্রাপ্ত বিদেশি টাকা অবৈধ হিসাবেই চিহ্নিত হতো। ২০১৬ এবং ২০১৮-র আর্থিক নীতি মেনেই চলতি বছরের ১ এপ্রিল থেকে ওই সংশোধনী কার্যকর হয়েছে।

সেই মামলা সুপ্রিম কোর্টে যাওয়ার পরেও একই ভাবে কেন্দ্রকে কারণ দর্শানোর নির্দেশ দিল সর্বোচ্চ আদালত।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here