Supreme court

নয়াদিল্লি: ভিমা কোরেগাঁও মামলায় গৃহবন্দি পাঁচ সমাজকর্মীর মুক্তির দাবিতে সুপ্রিম কোর্টে আবেদন জানিয়েছেন ইতিহাসবিদ রোমিলা থাপার-সহ আরও অনেকে। একই সঙ্গে তাঁরা দাবি তুলেছেন, এই মামলার প্রকৃত সত্য উদ্ঘাটনে একটি বিশেষ তদন্তকারী দল (সিট) গঠনের। তবে বৃহস্পতিবার এই মামলার শুনানিতে সর্বোচ্চ আদালত রায়দান থেকে বিরত রইল। জানা গিয়েছে, আগামী ২৪ সেপ্টেম্বর রায়দানের সম্ভাবনা রয়েছে।

এ দিন সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি দীপক মিশ্রের নেতৃত্বাধীন ডিভিশন বেঞ্চ উভয় তরফের আইনজীবীদের সঙ্গে পরামর্শ করার পরই রায়দান স্থগিত রাখেন। এ ব্যাপারে আইনজীবী অভিষেক মনুসিঙ্ঘভি, হরিশ সালভে এবং অতিরিক্ত সলিসিটর জেনারেল তুষার মেহতার সঙ্গে আলোচনার পর বেঞ্চ এই সিদ্ধান্ত নেয়।

একই সঙ্গে বেঞ্চের দুই সদস্য বিচারপতি এ এম খানিওয়ালকর এবং ডি ওয়াই চন্দ্রচূড় মহারাষ্ট্র পুলিশকে নির্দেশ দেন, এই ঘটনার তদন্ত সংক্রান্ত কেস ডায়েরি আদালতে কাছে জমা দিতে। আগামী ২৪ সেপ্টেম্বরের মধ্যে পুলিশকে ওই কেস ডায়েরি জমা করার নির্দেশ দেন বিচারপতিরা।

উল্লেখ্য, উল্লেখ্য, গত ২৮ আগস্ট হায়দরাবাদ থেকে সমাজকর্মী-কবি ভারভারা রাও, দিল্লি থেকে গৌতম নবলখা, থানে থেকে অরুণ ফেরেইরা, মুম্বই থেকে ভার্নন গঞ্জালভেজ ও ফরিদাবাদ থেকে মানবাধিকার আইনজীবী সুধা ভরদ্বাজকে গ্রেফতার করে পুণে পুলিশ। তাঁদের বিরুদ্ধে মাওবাদী কার্যকলাপে যুক্ত থাকার অভিযোগেই এই গ্রেফতারি বলে জানায় পুলিশ। পরে এই মামলা সুপ্রিম কোর্টে গেলে তাঁদের পুলিশি হেফাজতে নেওয়ার আবেদন নাকচ করে গৃহবন্দি করে রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়।


আরও পড়ুন: সমাজকর্মী গ্রেফতার: গৃহবন্দির মেয়াদ বাড়িয়ে পুণে পুলিশকে ভর্ৎসনা করল সুপ্রিম কোর্ট

ইতিহাসবিদ রোমিলা থাপার, অর্থনীতিবিদ প্রভাত পট্টনায়েক এবং দেবকী জৈন, সমাজতত্ত্বের অ্ধ্যাপক সতীশ দেশপাণ্ডে ও মানবাধিকারকর্মী মাজা দারুওয়ালা পাঁচ সমাজকর্মীর মুক্তি ও ঘটনার যথাযথ তদন্তে বিশেষ তদন্তকারী দল গঠনের আর্জি জানান সুপ্রিম কোর্টে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন