supreme-court

নয়াদিল্লি: যতক্ষণ না বিধায়করা শপথ নিচ্ছেন, ততক্ষণ দলত্যাগ-বিরোধী আইন খাটে না। কেন্দ্রের তরফে এই ব্যাখ্যাকে ‘অযৌক্তিক’ বলে পরিষ্কার জানিয়ে দিল শীর্ষ আদালত।

বিজেপির মুখ্যমন্ত্রী পদপ্রার্থী বিএস ইয়েদিয়ুরাপ্পার শপথ আটকাতে বুধবার রাতেই সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হয় কংগ্রেস। তাদের সেই রিট আবেদন নিয়ে বিচারপতি এ কে সিকরি, বিচারপতি এস এ বোবডে এবং বিচারপতি অশোক ভূষণের ডিভিশন শুনানি শুরু হয় রাত্রি ২টোর পর। শুনানি চলে তিন ঘণ্টারও বেশি সময় ধরে।

আরও পড়ুন মামলার চূড়ান্ত নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত সরকার গঠন নয়, জানিয়ে দিল সুপ্রিম কোর্ট

শুনানি চলাকালীন কংগ্রেসের তরফে অভিষেক মনু সিঙ্ঘভি বলেন, বিজেপি যতক্ষণ না বলছে তারা বিধায়কদের দল ত্যাগ করার ব্যাপারে উৎসাহ দিচ্ছে ততক্ষণ তারা সংখ্যাগরিষ্ঠতা দাবি করতে পারে না। সিঙ্ঘভির বক্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে বেঞ্চ বলে, এই বিষয়টি দলত্যাগ-বিরোধী আইনের আওতায় পড়ে।

কেন্দ্রের তরফে অ্যাটর্নি জেনারেল কেকে বেণুগোপাল বলেন এ ক্ষেত্রে ব্যাপারটা তা নয়। তাঁর মতে, “এক জন সদস্য যখন দল ভেঙে অন্য দলে চলে যান, তখন তাকে দলত্যাগ বলে। নির্বাচিত সদস্য যতক্ষণ না বিধায়ক হিসাবে শপথ নিচ্ছেন ততক্ষণ দলত্যাগ-বিরোধী আইন প্রযোজ্য হয় না।

আরও পড়ুন স্থগিতাদেশ দিল না সুপ্রিম কোর্ট, বিতর্কের মধ্যেই তড়িঘড়ি শপথ ইয়েদিয়ুরাপ্পার

বেণুগোপালের বক্তব্যে সন্তুষ্ট না হয়ে বেঞ্চ প্রশ্ন করে, “তার মানে আপনি বলতে চাইছেন শপথ নেওয়ার আগে বিধায়করা এক দল থেকে আরেক দলে যেতে পারেন? বিজেপি কী ভাবে ১১২-তে পৌঁছোতে চায় সে ব্যাপারে বিস্ময় প্রকাশ করে বেঞ্চ।

বেণুগোপালের বক্তব্যকে ‘অযৌক্তিক’ আখ্যা দিয়ে বেঞ্চের প্রশ্ন, “তা হলে কি আপনারা ঘোড়া কেনাবেচায় খোলাখুলি আমন্ত্রণ জানাচ্ছেন?”

 

 

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here