নয়াদিল্লি: নোট বাতিল কাণ্ডে ফের একবার কেন্দ্রকে তিরস্কার করল শীর্ষ আদালত। এক দিকে সরকারের বেঁধে দেওয়া টাকা তোলার ঊর্ধ্বসীমা সত্ত্বেও গ্রাহকদের ভোগান্তি, অন্য দিকে জেলা সমবায় ব্যাঙ্কগুলিতে পুরোনো ৫০০ আর ১০০০ টাকার নোট জমা না নেওয়া, দু’টি প্রসঙ্গেই কেন্দ্রকে বিঁধল সুপ্রিম কোর্ট।  

নোট বাতিলের বিরুদ্ধে যে এক গুচ্ছ আবেদন জমা পড়েছে আদালতে, শুক্রবার তার শুনানি ছিল শীর্ষ আদালতে। ব্যাঙ্ক থেকে টাকা তোলার যে ঊর্ধ্বসীমা ধার্য করা হয়েছে, গ্রাহকরা সেটা পাচ্ছেন না কেন, এ ব্যাপারে শুক্রবার কেন্দ্রকে প্রশ্ন করে প্রধান বিচারপতি টিএস ঠাকুরের নেতৃত্বাধীন ডিভিশন বেঞ্চ। পাশাপাশি জেলা সমবায় ব্যাঙ্কগুলিতে পুরোনো নোট জমা নেওয়ার ব্যাপারে সরকারের কী ভাবনা সে ব্যাপারেও কেন্দ্রের জবাবদিহি চাওয়া হয়েছে।

প্রধান বিচারপতি ছাড়াও ডিভিশন বেঞ্চে ছিলেন বিচারপতি এএম খানউইলকর আর বিচারপতি ডিওয়াই চন্দ্রচূড়। ডিভিশন বেঞ্চ বলে সরকার ব্যাঙ্ক থেকে টাকা তোলার ক্ষেত্রে ঊর্ধ্বসীমা বেঁধে দিয়েছে সপ্তাহে ২৪ হাজার টাকা। অথচ ৮ থেকে ১০ হাজারের বেশি কেউ পাচ্ছেন না। সরকারের উচিত টাকা তোলার এমন একটা ঊর্ধ্বসীমা নির্দিষ্ট করা যেটা সমস্ত গ্রাহক পাবেন। নোট বাতিল ইস্যুতে শীর্ষ আদালতে পরবর্তী শুনানি হবে আগামী ১৪ ডিসেম্বর।

অ্যাটর্নি জেনারেল মুকুল রোহতগি এ দিন আশ্বাস দেন আগামী দশ থেকে পনেরো দিনের মধ্যে সাধারণ মানুষের ভোগান্তি কমবে। সেই সঙ্গে দেশের বিভিন্ন হাইকোর্টে চলতে থাকা নোট বাতিল সংক্রান্ত মামলা স্থগিত করে দেওয়ার ব্যাপারে ফের একবার আদালতে আবেদন করেন তিনি। জবাবে সুপ্রিম কোর্ট জানায় পরবর্তী শুনানির দিন এ বিষয় আলোচনা করা হবে।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here