নয়াদিল্লি: জয়েন্ট এন্ট্রান্স পরীক্ষার ফলাফলের ভিত্তিতে আইআইটিতে ছাত্রছাত্রীদের কাউন্সেলিং এবং ভর্তির ওপর জারি করা স্থগিতাদেশ তুলে দিল সুপ্রিম কোর্ট। এর ফলে স্বস্তি পাবেন প্রায় পঞ্চাশ হাজার আইআইটি প্রার্থী।

আইআইটিতে ভর্তির ক্ষেত্রে গত শুক্রবার স্থগিতাদেশ জারি করেছিল বিচারপতি দীপক মিশ্র, বিচারপরি এম এম শানতনাগৌদর এবং বিচারপতি এএম খানউইলকরের ডিভিশন বেঞ্চ। কোনো রকম জটিলতা এড়ানোর জন্য হাইকোর্টগুলিকে আইআইটি সংক্রান্ত মামলা থেকে বিরত থাকতে বলেছে ডিভিশন বেঞ্চ।

তবে আইআইটিকে সতর্কও করেছে ডিভিশন বেঞ্চ। প্রবেশিকা পরীক্ষায় যে পরিস্থিতির জন্য গ্রেস নম্বর দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছিল, সেই পরিস্থিতি আর ভবিষ্যতে সৃষ্টি হবে না, এই ব্যাপারে প্রতিশ্রুতি দিতে হবে আইআইটিগুলিকে। আইআইটির পক্ষে কেন্দ্রের অ্যাটর্নি জেনারেল কেকে ভেনুগোপাল জানিয়ে দেন এ রকম ভুল ভবিষ্যতে আর হবে না।

সমস্যার সূত্রপাত, জয়েন্ট এন্ট্রান্স পরীক্ষায় গ্রেস নম্বর দেওয়া নিয়ে। ওই পরীক্ষায় প্রশ্নপত্রে কোনো গণ্ডগোলের জন্য সব পরীক্ষার্থীকেই গ্রেস নম্বর দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল জয়েন্ট এন্ট্রান্স বোর্ড। এই সিদ্ধান্ত মেনে নিতে পারেননি অনেক পরীক্ষার্থী। তেমনই একজন পরীক্ষার্থী ঐশ্বর্য আগরওয়ালের বক্তব্য ছিল, এই গ্রেস নম্বরের ফলে অযোগ্য পরীক্ষার্থীও নম্বর পেয়ে গিয়েছেন এবং এর ফলে ঐশ্বর্য এবং তাঁর মতো আরও অনেক যোগ্য পরীক্ষার্থীর অধিকার খর্ব হয়েছে। এর জন্যই সুপ্রিম কোর্টে আবেদন করেন ঐশ্বর্য।

ঐশ্বর্যের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতেই গত শুক্রবার স্থগিতাদেশ জারি করেছিল শীর্ষ আদালত। সেই সঙ্গে জয়েন্টি এন্ট্রান্সের মেধা তালিকাটি বাতিল করার জন্যও কেন্দ্রীয় মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রককে নির্দেশ দিয়েছিল তারা।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন