rajasthan elections
প্রতীকী ছবি

ওয়েবডেস্ক: এমন যদি হয়, তা হলে লোকসভা নির্বাচনের আগে বড়ো অক্সিজেন পাবে রাহুল গান্ধীর নেতৃত্বাধীন কংগ্রেস। সেই সঙ্গে বিরাট বড়ো ধাক্কা খাবে বিজেপি। যে পাঁচ রাজ্য বিধানসভা নির্বাচনে যাচ্ছে, তার মধ্যেই তিনটে রাজ্যই কংগ্রেস দখল করবে। এমনই পূর্বাভাস দিয়েছে সি-ভোটারের করা সমীক্ষা।

রাজস্থানে প্রত্যেক পাঁচ বছর অন্তর অন্তর সরকার বদলায়। সেই অনুযায়ী এ বার কংগ্রেসেরই সরকার গড়ার কথা। এই সংস্থা জানিয়েছে রাজ্যের দু’শো আসনের মধ্যে ১৪৫টা দখল করতে পারে কংগ্রেস। প্রতিষ্ঠান বিরোধিতার প্রভাব পড়বে বসুন্ধরা রাজ্যে সিন্ধিয়ার ওপরে, এমনই বলা হয়েছে সমীক্ষায়। ৩৯.৭ শতাংশ ভোট পেয়ে মাত্র ৪৫টা পেতে পারে বিজেপি। অন্য দিকে কংগ্রেস পেতে পারে ৪৭.৯ শতাংশ ভোট।

এ ছাড়াও পনেরো বছর পরে মধ্যপ্রদেশের কংগ্রেস ক্ষমতা দখল করতে পারে বলে জানিয়েছে সি-ভোটার। পাঁচ বছর আগে রাজ্যে ১৬৬টা আসন জিতেছিল বিজেপি। এ বার ৪২.৩ শতাংশ ভোট পেয়ে ১০৭টা আসন জিততে পারে তারা। অন্য দিকে ম্যাজিক সংখ্যা পেরিয়ে ১১৬টি আসনে শেষ করতে পারে কংগ্রেস।

টিআরএসের হাত থেকে কংগ্রেস-টিডিপি জোটের হাতে তেলঙ্গানার ক্ষমতা যেতে পারে বলেও পূর্বাভাস দিয়েছে এই সংস্থা। ম্যাজিক ফিগারের কিছু বেশি, ৬৪টা আসন জিততে পারে জোট। উল্লেখ্য, তেলঙ্গানায় ৯৪টা আসনে লড়বে বলে জানিয়েছে কংগ্রেস। বাকি আসনগুলির মধ্যে টিডিপি ১৪, তেলঙ্গানা জন সমিতি ৮ এবং সিপিআই তিনটে আসনে লড়তে পারে।

আরও পড়ুন নোট বাতিলের পর ৩০.২৩ লক্ষ কোটি টাকা কোথায় ঢুকেছে, ধরা পড়ল!

তবে মিজোরাম এবং ছত্তীসগঢ়ে হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের ইঙ্গিত দিয়েছে সি-ভোটার। মিজোরামে ক্ষমতাসীন কংগ্রেসের বিরুদ্ধে প্রতিষ্ঠান বিরোধিতার হাওয়া রয়েছে। সেই হাওয়াকে কাজে লাগিয়ে মিজো জাতীয় ফ্রন্ট একক সংখ্যাগরিষ্ঠ দল হতে পারে। তারা পেতে পারে ১৭টি আসন। কংগ্রেসের আসন কমে দাঁড়াতে পারে ১২-তে। তবে মিজোরাম ত্রিশঙ্কু হওয়ার সম্ভাবনা বেশি বলা জানিয়েছে তারা। অন্য দিকে ৯০ আসনের ছত্তীসগঢ় ত্রিশঙ্কু হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। সেখানে কংগ্রেস ৪১ এবং বিজেপি ৪৩টি আসন জিততে পারে।

এই পূর্বাভাস দেখে রীতিমতো উচ্ছ্বসিত কংগ্রেসের মুখপাত্র রনদীপ সুরজেওয়ালা। তাঁর দাবি, ছত্তীসগঢ়েও সরকার গড়তে বিশেষ সমস্যা হবে না তাঁদের।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here