Connect with us

দেশ

রাজস্থানের পাশাপাশি মধ্যপ্রদেশ, তেলঙ্গানাও পকেটে পুরবে কংগ্রেস?

ওয়েবডেস্ক: এমন যদি হয়, তা হলে লোকসভা নির্বাচনের আগে বড়ো অক্সিজেন পাবে রাহুল গান্ধীর নেতৃত্বাধীন কংগ্রেস। সেই সঙ্গে বিরাট বড়ো ধাক্কা খাবে বিজেপি। যে পাঁচ রাজ্য বিধানসভা নির্বাচনে যাচ্ছে, তার মধ্যেই তিনটে রাজ্যই কংগ্রেস দখল করবে। এমনই পূর্বাভাস দিয়েছে সি-ভোটারের করা সমীক্ষা।

রাজস্থানে প্রত্যেক পাঁচ বছর অন্তর অন্তর সরকার বদলায়। সেই অনুযায়ী এ বার কংগ্রেসেরই সরকার গড়ার কথা। এই সংস্থা জানিয়েছে রাজ্যের দু’শো আসনের মধ্যে ১৪৫টা দখল করতে পারে কংগ্রেস। প্রতিষ্ঠান বিরোধিতার প্রভাব পড়বে বসুন্ধরা রাজ্যে সিন্ধিয়ার ওপরে, এমনই বলা হয়েছে সমীক্ষায়। ৩৯.৭ শতাংশ ভোট পেয়ে মাত্র ৪৫টা পেতে পারে বিজেপি। অন্য দিকে কংগ্রেস পেতে পারে ৪৭.৯ শতাংশ ভোট।

এ ছাড়াও পনেরো বছর পরে মধ্যপ্রদেশের কংগ্রেস ক্ষমতা দখল করতে পারে বলে জানিয়েছে সি-ভোটার। পাঁচ বছর আগে রাজ্যে ১৬৬টা আসন জিতেছিল বিজেপি। এ বার ৪২.৩ শতাংশ ভোট পেয়ে ১০৭টা আসন জিততে পারে তারা। অন্য দিকে ম্যাজিক সংখ্যা পেরিয়ে ১১৬টি আসনে শেষ করতে পারে কংগ্রেস।

টিআরএসের হাত থেকে কংগ্রেস-টিডিপি জোটের হাতে তেলঙ্গানার ক্ষমতা যেতে পারে বলেও পূর্বাভাস দিয়েছে এই সংস্থা। ম্যাজিক ফিগারের কিছু বেশি, ৬৪টা আসন জিততে পারে জোট। উল্লেখ্য, তেলঙ্গানায় ৯৪টা আসনে লড়বে বলে জানিয়েছে কংগ্রেস। বাকি আসনগুলির মধ্যে টিডিপি ১৪, তেলঙ্গানা জন সমিতি ৮ এবং সিপিআই তিনটে আসনে লড়তে পারে।

আরও পড়ুন নোট বাতিলের পর ৩০.২৩ লক্ষ কোটি টাকা কোথায় ঢুকেছে, ধরা পড়ল!

তবে মিজোরাম এবং ছত্তীসগঢ়ে হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের ইঙ্গিত দিয়েছে সি-ভোটার। মিজোরামে ক্ষমতাসীন কংগ্রেসের বিরুদ্ধে প্রতিষ্ঠান বিরোধিতার হাওয়া রয়েছে। সেই হাওয়াকে কাজে লাগিয়ে মিজো জাতীয় ফ্রন্ট একক সংখ্যাগরিষ্ঠ দল হতে পারে। তারা পেতে পারে ১৭টি আসন। কংগ্রেসের আসন কমে দাঁড়াতে পারে ১২-তে। তবে মিজোরাম ত্রিশঙ্কু হওয়ার সম্ভাবনা বেশি বলা জানিয়েছে তারা। অন্য দিকে ৯০ আসনের ছত্তীসগঢ় ত্রিশঙ্কু হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। সেখানে কংগ্রেস ৪১ এবং বিজেপি ৪৩টি আসন জিততে পারে।

এই পূর্বাভাস দেখে রীতিমতো উচ্ছ্বসিত কংগ্রেসের মুখপাত্র রনদীপ সুরজেওয়ালা। তাঁর দাবি, ছত্তীসগঢ়েও সরকার গড়তে বিশেষ সমস্যা হবে না তাঁদের।

দেশ

পাঁচ রাজ্যে নতুন করে করোনা-আক্রান্ত ১৬,৭৯৯ বাকি দেশে ৫,৯৭২

খবরঅনলাইন ডেস্ক: যত দিন যাচ্ছে ভারতে করোনা-পরিস্থিতির ছবিতে একটি বিভাজন স্পষ্ট হয়ে যাচ্ছে। এক একটি রাজ্যে করোনাভাইরাসের (Coronavirus) একরকম ছবি দেখা যাচ্ছে।

এই যেমন গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ২২,৭৭১ জন। এর মধ্যে ১৬,৭৯৯ জনই পাঁচ রাজ্যের। অর্থাৎ, ভারতের বাকি অংশে নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন মাত্র ৫,৯৭২ জন।

শনিবার কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) তথ্য অনুযায়ী ভারতে করোনা-আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৬ লক্ষ ৪৮ হাজার ৩১৫। এর মধ্যে সক্রিয় রোগী রয়েছেন ২ লক্ষ ৩৫ হাজার ৪৩৩। সুস্থ হয়েছেন ৩ লক্ষ ৯৪ হাজার ২২৭। মৃত্যু হয়েছেন ১৮,৬৫৫ জনের।

গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে সুস্থ হয়েছেন ১৪,৩৩৫ জন। মৃত্যু হয়েছে ৪৪২। দেশে সুস্থতার হার বর্তমানে রয়েছে ৬০.৮০ শতাংশ।

যে পাঁচ রাজ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্তের সংখ্যা সব থেকে বেশি তারা হল, মহারাষ্ট্র, তামিলনাড়ু, দিল্লি, তেলঙ্গানা আর কর্নাটক।

মহারাষ্ট্রে সুস্থ হয়েছেন এক লক্ষের বেশি

গত ২৪ ঘণ্টায় সব থেকে বেশি আক্রান্তের খবর পাওয়া গিয়েছে মহারাষ্ট্র থেকেই (৬৩৬৪)। কিন্তু সে রাজ্যে সুস্থতার হারও আশাব্যঞ্জক। এখনও পর্যন্ত আক্রান্তের সংখ্যা দু’লক্ষের গণ্ডি না পেরোলেই ইতিমধ্যে সুস্থ হয়ে উঠেছেন এক লক্ষ চার হাজার ৬৮৭। সক্রিয় রোগী এখন রয়েছেন ৭৯,৯২৭।

এ রাজ্যে করোনায় মারা গিয়েছেন ৮৩৭৬ জন। ফলে মহারাষ্ট্রে মৃত্যুহার এখন রয়েছে ৪.৩৪ শতাংশ।

তামিলনাড়ুতে আক্রান্ত এক লক্ষ

মহারাষ্ট্রের পর দ্বিতীয় রাজ্য হিসেবে আক্রান্তের সংখ্যা এক লক্ষের গণ্ডি পেরোলো তামিলনাড়ুতে। গত ২৪ ঘণ্টায় এ রাজ্যে নতুন করে ৪৩২৯ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। ফলে তামিলনাড়ুতে এখন আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে

তবে তামিলনাড়ুতে রোজ ৩০ হাজারের বেশি নমুনা পরীক্ষা হচ্ছে। আর সুস্থতার হারও এই রাজ্যে ৫০ শতাংশের ওপরে রয়েছে। অন্যদিকে মৃত্যুহারও মাত্র এক শতাংশের কিছু বেশি রয়েছে।

এক লক্ষের পথে এগোলেও দিল্লির পরিস্থিতি কিছুটা থিতু হচ্ছে

দিল্লির করোনা-পরিস্থিতি কিছুটা থিতু হচ্ছে বলেই মনে করছে রাজ্য সরকার। গত কয়েকদিন ধরেই নতুন আক্রান্তের সংখ্যা দুই থেকে আড়াই হাজারের মধ্যে ঘোরাফেরা করছে। কিছুদিন আগেও সংখ্যাটা সাড়ে তিন হাজারের ওপরে ছিল। ফলে দিল্লিতে আক্রান্তের সংখ্যা হাজার হলেও কিছুটা স্বস্তিতেই রয়েছে প্রশাসন। রাজধানীতে সুস্থতার হারও বিপুল ( ৬৯.৩০ শতাংশ)। দিল্লিতে মোট আক্রান্তের সঙ্খ্যে ৯৪ হাজারের গণ্ডি পেরোলেও সক্রিয় রোগী রয়েছেন মাত্র ২৬,১৪৮।

পশ্চিমবঙ্গকে টপকে যাওয়ার পথে তেলঙ্গানা, কর্নাটক

পশ্চিমবঙ্গের মানুষ এই পরিসংখ্যানে কিছুটা হলেও স্বস্তি পেতে পারেন যে গত কয়েকদিনে যে প্রবণতা দেখা যাচ্ছে তাতে করোনা আক্রান্তের সংখ্যায় পশ্চিমবঙ্গকে টপকে যেতে চলেছে তেলঙ্গানা আর কর্নাটক।

এর মধ্যে তেলঙ্গানার ছবি, সব থেকে ভয়াবহ। গত ২৪ ঘণ্টায় এ রাজ্যে নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ১,৮৯২ জন। এর ফলে এই রাজ্যে মোট আক্রান্তের সংখ্যা এখন চলে এসেছে ২০,৪৬২-তে। পশ্চিমবঙ্গে বর্তমানে আক্রান্তের সংখ্যা ২০,৪৮৮। কিন্তু তেলঙ্গানার কাছে ভয়াবহ ব্যাপারটি হল তেলঙ্গানায় যত নমুনা পরীক্ষা হয়েছে, তার পাঁচগুণ বেশি নমুনা পরীক্ষা হয়েছে পশ্চিমবঙ্গে।

পিছিয়ে নেই কর্নাটকও। গত ২৪ ঘণ্টায় এ রাজ্যে ১৬০০-এর বেশি মানুষ করোনায় আক্রান্ত হওয়ায় রাজ্যে মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ১৯,৭১০। তেলঙ্গানা আর কর্নাটকে সুস্থতার হার ৫০ শতাংশের নীচে রয়েছে।

মোট নমুনা পরীক্ষা

আইসিএমআরের তথ্য বলছে, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে ২ লক্ষ ৪২ হাজার ৩৮৩টি নমুনা পরীক্ষা হয়েছে। এর ফলে এখনও পর্যন্ত ভারতে ৯৫ লক্ষ ৪০ হাজার ১৩২টি নমুনা পরীক্ষা হয়ে গিয়েছে।

Continue Reading

দেশ

“১৫ আগস্টেই বাজারে আসবে, তবে ২০২১-এ,” কোভ্যাক্সিন নিয়ে সরকারি সময়সীমার তীব্র নিন্দা বিশেষজ্ঞদের

খবরঅনলাইন ডেস্ক: গত সোমবারই, ভারতে তৈরি প্রথম করোনা-ভ্যাকসিন ‘কোভ্যাক্সিন’ (Covaxin) এর মানবশরীরে পরীক্ষানিরীক্ষা চালানোর জন্য ভারত বায়োটেককে ছাড়পত্র দিয়েছিল ড্রাগ কন্ট্রোলার জেনারেল অব ইন্ডিয়া (ডিসিজিআই)। তার চার দিনের মাথায় আইসিএমআর (ICMR) জানিয়ে দিল, তারা চায় ১৫ আগস্ট এই টিকাটিকে বাজারজাত করতে।

দেশের যে ১২টি প্রতিষ্ঠানে কোভ্যাক্সিনের পরীক্ষানিরীক্ষা চালানো হবে, সেই প্রতিষ্ঠানগুলিতে চিঠি দেন আইসিএমআরের ডিরেক্টর ডঃ বলরাম ভার্গব।

সে সব স্বেচ্ছাসেবকের ওপরে এই টিকার পরীক্ষামূলক প্রয়োগ হবে, ৭ জুলাইয়ের মধ্যে তাদের নাম নথিভুক্ত করার নির্দেশ দিয়েছে আইসিএমআর। আইসিএমআর জানিয়েছে, কোভিডের (Covid 19) মতো সংক্রমণ রুখতে ও দ্রুত প্রতিষেধক বাজারে আনার তাগিদে ওই সংস্থাগুলিকে সমস্ত প্রয়োজনীয় ছাড়পত্র দ্রুত জোগাড় করে কাজ শুরু করতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

ভার্গব চিঠিতে লিখেছেন, প্রকল্পটির নজরদারি চলছে সরকারের একেবারে শীর্ষ স্তর থেকে। নির্দেশ না মানলে কঠোর মনোভাব নেবে সরকার।

মানবশরীরে প্রয়োগ করার ছাড়পত্র পাওয়ার মাত্র দু’ মাসের মধ্যে কোনো টিকা বাজারে চলে এল, এই ধরনের ঘটনা আগে কখনও ঘটেনি। আর এটা কার্যত অসম্ভব বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা।

ইন্ডিয়ান জার্নাল অব মেডিক্যাল এথিক্সের সম্পাদক অমর জেসানি এই প্রসঙ্গেই বলেন, “মানবশরীরে প্রয়োগ শুরু হওয়ার আগেই বাজারে নিয়ে আসার সম্ভাব্য তারিখ ঘোষণা করে দেওয়া হল। আমি জানি না, এই ধরনের ঘটনা বিশ্ব আর কখনও ঘটেছে কি না। বিজ্ঞান এ ভাবে কাজ করে না।”

ভার্গবের এই চিঠির প্রসঙ্গে আইসিএমআরেরই এক কর্তা বসন্ত মুতুস্বামী বলেন, “আমার নিজের অভিজ্ঞতা বলছে টিকাকে বাজারে নিয়ে আসার জন্য এত কম সময়সীমা দেওয়া যায় না।”

যে সব চিকিৎসকের তত্ত্বাবধানে এই টিকাটি মানবশরীরে প্রয়োগ করা হবে, তাঁরাও বলছেন এই সময়সীমা আদৌ বাস্তববাদী নয়।

‘এটা মানবশরীরে প্রয়োগ করতে হবে, কোনো জীবজন্তুর শরীরে নয়’

যে ১২টি প্রতিষ্ঠান এই পরীক্ষা চালাবে, তাদের মধ্যে ৭টা প্রতিষ্ঠান এখনও স্বাধীন নীতি কমিটির (Independent Ethics Committee) কোনো ছাড়পত্রই জোগাড় করতে পারেনি। এই ছাড়পত্র না পেলে মানবশরীরে প্রয়োগ করার কাজটি শুরুই করা যায় না।

এই ১২টি প্রতিষ্ঠানের অন্যতম ভুবনেশ্বরের ইন্সটিটিউট অব মেডিক্যাল সায়ান্সেস। সেখানকার চিকিৎসক, তথা এই পরীক্ষানিরীক্ষার দায়িত্বে থাকা ডঃ বেঙ্কট রাও বলেন, “যে যা-ই বলুক, আমি নীতি কমিটির ছাড়পত্র না পেলে এক চুলও এগোবো না।”

তিনি যোগ করেন, “আমার কোনো অনমনীয় মনোভাব নেই। কিন্তু আমি বলছি, সব নিয়ম পরিষ্কার ভাবে পালন করে তবেই আমি এগোব। আমার প্রাথমিক উদ্দেশ্য হল কারও কোনো ক্ষতি করা যাবে না।”

আরও একটি প্রতিষ্ঠানের এক কর্তা বলেন, “এটা বিজ্ঞানসম্মত কোনো চিঠিই নয়। নীতি কমিটি ছাড়পত্র না দিলে ৭ জুলাই কেন, ৭ ডিসেম্বরও মানবশরীরে প্রয়োগ করার পরীক্ষা শুরু করতে পারব না। প্রধানমন্ত্রী হস্তক্ষেপ করলেও প্রোটোকল থেকে সরতে পারব না। এটা মানবশরীরে প্রয়োগ করতে হবে, জীবজন্তুর শরীরে নয়।”

এখনও পর্যন্ত যে ৫টি প্রতিষ্ঠান এই ছাড়পত্র জোগাড় করেছে, তাদের মধ্যে চারটেই বেসরকারি প্রতিষ্ঠান। এর মধ্যে একটি, কর্নাটকের বেলগাঁওয়ের জীবনরেখা হাসপাতাল। সরকারি সময়সীমা মানার ব্যাপারে এই হাসপাতালের কর্তৃপক্ষ যথেষ্ট আশাবাদী।

হাসপাতালের এক কর্তা বলেন, “১৫ আগস্টের মধ্যে সব কাজ শেষ হবে বলে আমরা আশাবাদী। সরকার যদি একটা তারিখ নির্দিষ্ট করে থাকে, নিশ্চয় তারা কিছু ভেবেচিন্তেই করেছে।”

তিন ধাপে মানবশরীরে প্রয়োগ করা হয়

অনেক প্রতিষ্ঠানই এই সময়সীমা নিয়ে প্রশ্ন তুলতে শুরু করে দিয়েছে। প্রথমত, ৭ জুলাইয়ের মধ্যে স্বেচ্ছাসেবকদের নথিভুক্ত করা কোনো ভাবেই সম্ভব নয় বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছেন লখনউয়ের কিং জর্জ হাসপাতালের এক কর্তা। তাঁর কথায়, “আদৌ আমরা এই সময়ের মধ্যে ছাড়পত্র (নীতি কমিটির) পাই কি না, সেটাই দেখার।”

সেই ছাড়পত্র যদিও বা পাওয়া যায়, ১৫ আগস্টের মধ্যে মানবশরীরে পরীক্ষার ফল, অর্থাৎ ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের ফল কোনো ভাবেই প্রকাশ করা যাবে যাবে না, এমনই জানাচ্ছেন ওই কর্তা। এই ১২টি প্রতিষ্ঠানে মোট ১১২৫ জনের শরীরে এই টিকা পরীক্ষামূলক ভাবে প্রয়োগ করার কথা।

সাধারণত তিনটে ধাপে একটি নতুন টিকার মানবশরীরে প্রয়োগের পরীক্ষা চালানো হয়। প্রথম ধাপে, অল্প সংখ্যক স্বেচ্ছাসেবকের ওপরে এই টিকা প্রয়োগ করা হয়। টিকাটি কতটা নিরাপদ, সেটা দেখা হয়। দ্বিতীয় ধাপে, স্বেচ্ছাসেবকদের সংখ্যা অনেকটাই বাড়ে। সেখানে দেখা হয়, এই ভ্যাকসিনের কারণে নির্দিষ্ট রোগের প্রতিরোধ ক্ষমতা মানবশরীরে তৈরি হচ্ছে কি না।

এর পর আসে তৃতীয় ধাপ। এই ধাপে বিপুল সংখ্যক মানুষের ওপরে এই টিকা প্রয়োগ করা হয়। সেই পরীক্ষা সফল হলে তবেই তা বাজারজাত করার ছাড়পত্র দেওয়া হয়।

বর্তমানে অক্সফোর্ডের তৈরি করোনার টিকাটির তৃতীয় ধাপের পরীক্ষানিরীক্ষা চলছে। আগামী মাসে মার্কিন সংস্থা মডার্নার টিকাটির তৃতীয় ধাপের পরীক্ষা শুরু হবে।

এ দিকে কোভ্যাক্সিনের ক্ষেত্রে তৃতীয় ধাপের পরীক্ষার কোনো উল্লেখই কোথাও করা নেই!

এই প্রসঙ্গেই একটি সরকারি প্রতিষ্ঠানের এক বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক বলেন, “১৫ আগস্টের মধ্যে প্রথম ধাপের পরীক্ষাই শেষ হবে না।” আরও চাঁচাছোলা ভাষায় তাঁর বক্তব্য, “আমার মনে হয়, ওঁরা ঠিক তারিখটাই (১৫ আগস্ট) বলেছে, কিন্তু বছরটা লিখতে ভুল করেছে। ওটা ২০২১ হবে।”

Continue Reading

দেশ

নতুন নিয়মে খুলছে তাজমহল!

সৌধগুলিতে প্রবেশের জন্য প্রত্যেক দর্শনার্থীকে অবশ্যই মাস্ক পরতে হবে। প্রবেশ পথে থাকবে থার্মাল স্ক্রিনিংয়ের ব্যবস্থা।

ওয়েবডেস্ক: প্রায় সাড়ে তিন মাস বন্ধ থাকার পর ফের খুলছে তাজমহল। সূত্রের খবর, কোভিড-১৯ মহামারির (Covid-19 pandemic) মধ্যেই আগামী ৬ জুলাই থেকে ফের দর্শনার্থীদের প্রবেশাধিকার দেওয়া হতে পারে।

আগরার (Agra) পর্যটন শিল্পের বৃহত্তম অংশ নির্ভরশীল তাজমহলের (Taj Mahal) উপরেই। ফলে তা খুলে দেওয়া হলে এই শিল্পে নতুন করে প্রাণসঞ্চার হতে পারে।

আর্কিওলজিক্যাল সার্ভে অব ইন্ডিয়ার (ASI) একটি সূত্র জানাচ্ছে, করোনাভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধের যাবতীয় পদক্ষেপ বজায় রেখেই আনলক-২ পর্বেই তাজমহল খুলে দেওয়ার আশা করা হচ্ছে। তবে এ ব্যাপারে শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখতে বিশেষ পদ্ধতি অবলম্বন করা হবে।

কী ভাবে খোলা হবে?

দু’টি শিফটে খোলা হতে পারে তাজমহল। প্রত্যেক শিফটে সর্বাধিক পাঁচ হাজার এবং আড়াই হাজার করে দর্শনার্থীকে প্রবেশের অনুমতি দেওয়া হতে পারে।

একই ভাবে আগরা দুর্গেও সকালের শিফটে ১২০০ এবং দুপুরের শিফটে ১৩০০ দর্শনার্থীকে প্রবেশের অনুমতি দেওয়া হতে পারে।

সৌধগুলিতে প্রবেশের জন্য প্রত্যেক দর্শনার্থীকে অবশ্য়ই মাস্ক পরতে হবে। প্রবেশ পথে থাকবে থার্মাল স্ক্রিনিংয়ের ব্যবস্থা। ভিতরের ঢোকার পরেও শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখতে হবে। আপাতত হাতে-হাতে টিকিটের পরিবর্তে ই-টিকিটিং ব্যবস্থাকেই বেছে নেওয়া হতে পারে বলে সূত্রটি জানিয়েছে।

বন্ধ হওয়ার আগে

গত ১৭ মার্চ থেকে দর্শনার্থীদের জন্য পুরোপুরি বন্ধ হয়ে যায় তাজমহল।

করোনাভাইরাস সংক্রমণের জেরে দর্শনার্থীর সংখ্যা হু হু করে কমতে শুরু করে। লকডাউনে ধর্মীয়, পর্যটনস্থানগুলি বন্ধ হয়ে যায়। পাশাপাশি দর্শনার্থীর সংখ্য়া হ্রাসও একটা বড়ো কারণ।

বিদেশি পর্যটকদের ভিসার উপর কড়াকড়ি শুরু হওয়ার পর তাঁরা আর আগের মতো ভিড় জমাতেন না।

বন্ধ হওয়ার সপ্তাহে সার্বিক দর্শনার্থীর সংখ্যায় উল্লেখ্য়নীয় পতন ঘটে। রবিবার ছুটির দিনে যেখানে ২৫ হাজারের বেশি দর্শনার্থীর সমাগম হতো, সেখানে ওই সপ্তাহে দর্শনার্থীর সংখ্যা ঠেকে ১৩ হাজারে। অথচ শনিবার তা ছিল ১৫ হাজারের বেশি, বৃহস্পতিবার ১৬ হাজারের বেশি। অন্য দিকে রবিবার বিদেশি দর্শনার্থীদের সংখ্যা স্বাভাবিক সময়ে তিন হাজারের কম-বেশি থাকলেও ওই সপ্তাহে তা হয় মাত্র ১২০০।

এক দিকে মারণ ভাইরাস নিয়ে দর্শনার্থীদের মনে সংশয় এবং অন্য দিকে বেশ কিছু কড়াকড়ি দর্শনার্থী সংখ্য়ায় ভাটার সৃষ্টি করে।

পর্যটনে খুশির খবর

টানা কয়েক মাস বন্ধ থাকার পর ফের তাজমহল খোলার খবর শুনে আগরা টুরিস্ট ওয়েলফেয়ার চেম্বারের প্রেসিডেন্ট প্রহ্লাদ আগরওয়াল উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেন। তিনি বলেন, “আগরা পর্যটন শিল্পের সঙ্গে জড়িত প্রায় চার লক্ষ মানুষ স্বস্তি পাবেন। আশা করা হচ্ছে, আন্তর্জাতিক বিমান পরিষেবা চালু হওয়ার পর পরিস্থিতি ধীরে হলেও আবার আগের অবস্থায় ফিরে আসবে”।

অন্য দিকে টুরিজম গিল্ড অব আগরার চেয়ারম্যান হরি সুকুমার বলেন, “এই সিদ্ধান্ত সারা বিশ্বকে ইতিবাচক বার্তা দেবে-আগরা পর্যটকদের জন্য নিরাপদ”।

Continue Reading
Advertisement
দেশ3 mins ago

পাঁচ রাজ্যে নতুন করে করোনা-আক্রান্ত ১৬,৭৯৯ বাকি দেশে ৫,৯৭২

শিল্প-বাণিজ্য27 mins ago

ভারত অ্যাপ নিষিদ্ধ করতেই চিনের সঙ্গে দূরত্ব বাড়াচ্ছে টিকটক

রাজ্য29 mins ago

করোনা-আক্রান্তের সংখ্যায় কলকাতাকে পেছনে ফেলে দিল হায়দরাবাদ, বেঙ্গালুরু

দেশ1 hour ago

“১৫ আগস্টেই বাজারে আসবে, তবে ২০২১-এ,” কোভ্যাক্সিন নিয়ে সরকারি সময়সীমার তীব্র নিন্দা বিশেষজ্ঞদের

বিনোদন13 hours ago

‘সড়ক ২’ পোস্টার: ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাতের অভিযোগে মহেশ ভাট, আলিয়া ভাটের বিরুদ্ধে মামলা

রাজ্য14 hours ago

রেকর্ড সংখ্যক পরীক্ষার দিন আক্রান্তের সংখ্যাতেও নতুন রেকর্ড, রাজ্যে বাড়ল সুস্থতার হারও

দেশ14 hours ago

নতুন নিয়মে খুলছে তাজমহল!

wfh
ঘরদোর15 hours ago

ওয়ার্ক ফ্রম হোম করছেন? কাজের গুণমান বাড়াতে এই পরামর্শ মেনে চলুন

দেশ1 day ago

কোভিড আপডেট: নতুন করে আক্রান্ত ২০,৯০৩, সুস্থ ২০,০৩২

ক্রিকেট3 days ago

আইসিসির চেয়ারম্যানের পদ থেকে সরে দাঁড়ালেন শশাঙ্ক মনোহর, এ বার কি সৌরভ?

বিজ্ঞান3 days ago

কোভাক্সিন কী? জেনে নিন বিস্তারিত

ক্রিকেট3 days ago

২০১১ বিশ্বকাপ কাণ্ড: ফাইনালে খেলা ক্রিকেটারকে জিজ্ঞাসাবাদ শ্রীলঙ্কা পুলিশের

দেশ3 days ago

করোনিল বিক্রিতে কোনো নিষেধাজ্ঞা নেই, সারা দেশেই পাওয়া যাবে: রামদেব

দেশ1 day ago

দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যায় নতুন রেকর্ড, সুস্থতাতেও রেকর্ড

ক্রিকেট2 days ago

চলে গেলেন ‘থ্রি ডব্লু’-এর শেষ জন স্যার এভার্টন উইকস, শেষ হল একটা অধ্যায়

শিল্প-বাণিজ্য3 days ago

পিপিএফ, এনএসসি-সহ অন্যান্য ক্ষুদ্র সঞ্চয় প্রকল্পে সুদের হার অপরিবর্তিত

নজরে