রবীন্দ্রনাথের গান আরও ৬টি ভারতীয় ভাষায় অনুবাদ করে গাওয়া হবে!

0
25boishakh
ছবি ফেসবুক থেকে

ওয়েবডেস্ক:  ‘হে মোর চিত্ত পূর্ণ তীর্থে জাগোরে ধীরে’ গানটি দেশাত্মবোধ। সকল মানুষকে এক হওয়ার কথা বলে।

উপাসনা হল একটি সংস্কৃতিক সংগঠন। এরা ৯ মে রবীন্দ্র জন্ম জয়ন্তী উপলক্ষ্যে একটি সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করতে চলেছে। এখানে ভাষা কোনো বাধা নয়।

তারই প্রাক উদযাপনে দু’টি রবীন্দ্র সঙ্গীত ছ’টি ভাষায় অনুবাদ করেছে।

অনুষ্ঠান ‘সন্ধ্যা বৈতালিক’-এর অঙ্গ হিসাবে এই অনুবাদিক গান গাওয়া হবে। ৬০টি পেশার মানুষকে একত্রিত করবে এই মঞ্চ। এ বারের অনুষ্ঠানের থিম দেশাত্মবোধ। মারাঠি, হিন্দি, তামিল, গুজরাতি, ওড়িয়া, বাঙলা ভাষায় গাওয়া হবে গান। মুম্বই আর পুনের গায়ক গায়িকারা এতে অংশগ্রহণ করবেন।

উপাসনার প্রতিষ্ঠা শর্মিলা মজুমদার বলেছেন, একমাস ধরে চলছে এর অনুশীলন। ললিত কলা কেন্দ্রে অনুষ্ঠানটি হবে। রবীন্দ্রও জয়ন্তী অনেক হয়। কিন্তু তাঁদের এই চিন্তাভাবনাটি সম্পূর্ণ আলাদা।

আরও পড়ুন – রবীন্দ্রনাথ সম্পর্কে এই তথ্যগুলি না-জানলে অনেক কিছুই অজানা থেকে যাবে!

সংস্থার সদস্য আবোলি বলেন, এর আগে বাঙলায় এই গানগুলি শুনেছিলেন। এখন অন্য ভাষাতে শুনছেন, গাইছেন। অন্য ভাষার সঙ্গে বাংলার অনেক মিল খুঁজে পাচ্ছেন। এতে করে গানের ভাব বজায় রাখতে সুবিধে হচ্ছে।

গানগুলির অনুবাদের দায়িত্বে ছিলেন ললিত কলা কেন্দ্রের সঙ্গীত অধ্যাপক চৈতন্য কুন্তে। বলেন, শব্দানুবাদ করা সহজ। কিন্তু ছন্দের সঙ্গে, সুরের সঙ্গে মিলিয়ে শব্দের অনুবাদ করা বেশ কঠিন।

কুন্তে বলেন, তবে সবটাই করা আসন্ন জন্ম জয়ন্তীর জন্য।   

------------------------------------------------
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.