তামিলনাড়ু : এতটা ভয়ংকর খরা ১৪০ বছরে দেখেনি তামিলনাড়ু। চেন্নাই শহরের গুরুত্বপূর্ণ চারটি জলাশয়ই শুকিয়ে গেছে। পানীয় জলের চূড়ান্ত অভাব।

জল সরবরাহ দফতরের এক শীর্ষ আধিকারিক জানিয়েছেন, প্রতিদিন গোটা শহরে প্রায় ৮ হাজার ৩০০ লক্ষ লিটার জল লাগে। সেই জায়গায় গত কয়েক দিনে জল সরবরাহের পরিমাণ কমে দাঁড়িয়েছে তার অর্ধেক। শহরের অনেক জায়গায় তিন দিনে মাত্র এক বার করে পাইপের জল সরবরাহ করা হচ্ছে। জল সরবরাহ করার জন্য শহরে মোট ৩০০টি জলের ট্যাঙ্কার নামানো হয়েছে। পণ্ডি, রেড হিলস, চোলাভরম, চেম্বরম্বকম —চেন্নাই শহরকে ঘিরে থাকা এই চারটি জলাশয়ই শুকিয়ে গেছে। ২০০ কিলোমিটার দূরে নেভেলির যে বীরানম হ্রদ থেকেও পাইপলাইনের সাহায্যে চেন্নাই শহরে জল সরবরাহ করা হয়, সেটি পর্যন্ত শুকিয়ে গেছে।

তিনি বলেন, এ ছাড়াও কাঞ্চিপুতম ও থিরুভাল্লুর থেকেও জল সরবরাহ করা হয়। চেন্নাইয়ে মাটির তলা যে জল তোলা হয় তা পূরণ করে শহরের ৬০ কিলোমিটার ব্যাসার্ধের মধ্যে ৫টি হ্রদ — পুঝল, শোলাভরম, কালিভেলি, পুলিকাট এবং মাদুরন্থাকাম। অসময়ের বৃষ্টিতে ২১০৫ সালে এই লেকগুলিতে জল উপচে গিয়ে চেন্নাই শহরে বন্যা দেখা দিয়েছিল। এ ছাড়াও চেন্নাই ও তার আশেপাশের জেলাগুলিতে প্রচুর ছোটোখাটো জলাশয় আছে। পরিবেশবিদরা বলেন, এই লেক ও জলাশয়গুলো যদি ঠিকঠাক রক্ষা করা হত, তা হলে চেন্নাইয়ে এ রকম জলকষ্ট দেখা দিত না।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন