ওয়েবডেস্ক: ‘ওয়াটার ওয়াটার এভরিহোয়্যার, নট এ ড্রপ টু ড্রিংক!’ এই অবস্থাই হয়েছে এখন চেন্নাইয়ের। শহরের একটা দিক তো জলই জল। কারণ দিগন্ত বিস্তৃত বঙ্গোপসাগর। কিন্তু শহরবাসীর কাছে পানীয় জল কার্যত নেই বললেই চলে। বৃষ্টি না হওয়ায় জলের সংকট দিনের পর দিন বেড়েই চলেছে। এই পরিস্থিতিতে চেন্নাইয়ের পাশে দাঁড়ানোর জন্য বিশেষ সাহায্যের আশ্বাস দিয়েছিল কেরলের বাম সরকার। কিন্তু কেরলের সেই সাহায্যের আবেদন ফিরিয়ে দিয়েছে তামিলনাড়ু। ফলে রাজ্যের মানুষের মধ্যে ক্ষোভ আরও বেড়ে গিয়েছে।

তামিলনাড়ু সরকারকে কেরল বলেছিল, তারা জলহীন চেন্নাইয়ের জন্য কুড়ি লক্ষ লিটার জল পাঠাতে চায়। কিন্তু কেরলের সেই প্রস্তাব তামিলনাড়ু ফিরিয়ে দিয়েছে বলে জানিয়েছেন কেরলের মুখ্যমন্ত্রী পিনারাই বিজয়ন। এই প্রসঙ্গে ফেসবুকে একটি পোস্টে তিনি লেখেন, “আমরা জল পাঠানোর আশ্বাস দিলেও তামিলনাড়ু জানিয়েছে, এই মুহূর্তে তাদের কাছে প্রয়োজনীয় জল রয়েছে। ফলে এই সাহায্য তারা গ্রহণ করবে না।” কেরলের পরিকল্পনা ছিল, ট্রেনে করে এই জল চেন্নাই পাঠানো হবে।

উল্লেখ্য, চেন্নাই শহরের চার দিকে চারটে জলাধার রয়েছে যেখান থেকে শহরে জল সরবরাহ হয়। কিন্তু সেই জলাধারে মজুত জল এক্কেবারে তলানিতে। প্রশাসনিক কর্তাদের হিসেবই বলছে, মোট জলধারণ ক্ষমতার মাত্র ০.২ শতাংশ জল রয়েছে জলাধারগুলিতে। এই পরিস্থিতিতে কেরলের সাহায্য ফিরিয়ে দেওয়াটা কোনো ভাবেই বুদ্ধিমানের কাজ হয়নি বলেই মনে করা হচ্ছে। ফলে প্রশাসনিক কর্তাদের আবেদনের ভিত্তিতে, শুক্রবার নতুন করে এই ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নিতে পারে তামিলনাড়ু সরকার।

আরও পড়ুন টিডিপি থেকে বিজেপিতে যাওয়া দুই সাংসদের বিরুদ্ধে চাঞ্চল্যকর অভিযোগ!

যদিও এই সাহায্যের আশ্বাসের জন্য বিজয়নকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন তামিলনাড়ুর বিরোধী দলনেতা এমকে স্ট্যালিন। তিনি বলেন, “আমাদের পাশে দাঁড়ানোর জন্য কেরল সরকারের কাছে আমরা কৃতজ্ঞ। রাজ্য সরকারের কাছে আবেদন দয়া করে কেরলের এই সাহায্য গ্রহণ করুন। দুই রাজ্য নিজেদের মধ্যে সমন্বয় রেখে এই সমস্যার সমাধান করুন।”

তবে জল নিয়ে একটা রাজনীতির খেলা যে চলছে তা বলাই বাহুল্য। কারণ দিন দুয়েক আগেই তামিলনাড়ুর মুখ্যমন্ত্রী পালানিস্বামী অভিযোগ করেছিলেন, জলের অবস্থা খুব একটা খারাপও নয় চেন্নাইয়ে। মিডিয়াই নাকি সেটা ফলাও করে দেখাচ্ছে। মুখ্যমন্ত্রীর এই প্রতিক্রিয়ার পর মানুষের মধ্যে ক্ষোভ আরও বেড়ে গিয়েছে। তামিলনাড়ু সরকারের কাছে এখন তাই দুটো চ্যালেঞ্জ, এই ক্ষোভ সামাল দেওয়া এবং পর্যাপ্ত জলের ব্যবস্থা করা।

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন