সিএএ-র সমর্থনে নির্মলা সীতারমণের উদাহরণ তসলিমা নাসরিন!

0
Taslima Nasreen and Nirmala Sitharaman
প্রতীকী ছবি

চেন্নাই: কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন (সিএএ) নিয়ে বিরোধীদের অভিযোগকে নস্যাৎ করে জানালেন, কোনো রাজ্যই কেন্দ্রের এই আইনকে প্রত্যাখ্যান করতে পারে না।

এ প্রসঙ্গেই তিনি পাকিস্তানি গায়ক আদনান সামি এবং বাংলাদেশ থেকে পালিয়ে এসে ভারতে বসবাসকারী লেখিকা তসলিমা নাসরিনের নামোল্লেখ করেন।

নির্মলা বলেন, “বিরোধীরা অভিযোগ করছে, সিএএ একটি মুসলিম-বিরোধী আইন। কিন্তু এটা মোটেই সত্য নয়। ২০১৬ সালের পর থেকে পাকিস্তান, বাংলাদেশ অথবা আফগানিস্তান থেকে যাঁদের ভারতীয় নাগরিকত্ব দেওয়া হয়েছে, তাঁদের মধ্যে মুসলমান সম্প্রদায়ের মানুষও রয়েছেন। আদনান সামিকে নাগরিকত্ব দেওয়া হয়েছে। তসলিমা নাসরিন অন্য একটি উদাহরণ। এটাই প্রমাণ করে বিরোধীরা নতুন আইনের বিরুদ্ধে যে সব অভিযোগ তুলছেন, তা আদতে মিথ্যা”।

সিএএ-র নীতি স্পষ্ট করে নির্মলা দাবি করেন, “সিএএ নাগরিকত্ব দেওয়ার আইন, কেড়ে নেওয়ার নয়। এটা নির্দিষ্ট গোষ্ঠীর কিছু মানুষকে নাগরিকত্ব দেবে। ফলে নাগরিকত্ব কেড়ে নেওয়া হবে, এমন আশঙ্কায় যাঁরা রয়েছেন, তাঁদের আমরা আশ্বস্ত করতে চাই”।

বিশদ পরিসংখ্যান তুলে ধরে নির্মলা বলেন, “শেষ দু’বছরে ৩৯১ জন আফগানিস্তানি এবং ১,৫৯৫ জন পাকিস্তানিকে ভারতীয় নাগরিকত্ব দেওয়া হয়েছে। শেষ ছ’বছরে ২,৮৩৮ জন পাকিস্তানি, ৯১৪ জন আফগান এবং ১৭২ জন বাংলাদেশিকে নাগরিকত্ব দেওয়া হয়েছে। অবশ্যই, সেখানেও মুসলিম সম্প্রদায়ের মানুষও ছিলেন”।

একই সঙ্গে কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী দাবি করেন, “১৯৬৪ সালের পর থেকে শ্রীলঙ্কা থেকে আসা ৪ লক্ষেরও বেশি তামিলকে নাগরিকত্ব দেওয়া হয়েছে। প্রায় ৯৫ হাজারের মতো শ্রীলঙ্কান তামিল এখনও ক্যাম্পে রয়েছে। আগামী দিনে তাঁদেরও নাগরিকত্ব দেওয়া হবে”।

[ আরও পড়ুন: কেরল ও পঞ্জাবের পরে বিধানসভায় সিএএ-বিরোধী প্রস্তাব নিয়ে আসছে মহারাষ্ট্র ]

প্রসঙ্গত, ২০০৪ সাল থেকে রেসিডেন্স ভিসা নিয়ে ভারতে বসবাস করছেন বাংলাদেশি লেখিকা। তাঁর মুসলিম-বিরোধী মানসিকতার জন্য ১৯৯৪ সালে নিজের দেশে খুনের হুমকির মুখোমুখি হন।

------------------------------------------------
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.