চিরাগ পাসোয়ানের পাশে দাঁড়ালেন তেজস্বী যাদব, কপালে ভাঁজ নীতীশ কুমারের

0

খবরঅনলাইন ডেস্ক: লোক জনশক্তি পার্টির (LJP) প্রধান চিরাগ পাসোয়ানের (Chirag Paswan) পাশে দাঁড়ালেন রাষ্ট্রীয় জনতা দলের (RJD) প্রধান তেজস্বী যাদব (Tejashwi Yadav)। এখন এই দুই তরুণ রাজনীতিক যদি হাত মেলান তবে তা বিহারের মুখ্যমন্ত্রী (Bihar Chief Minister) নীতীশ কুমারের (Nitish Kumar) পক্ষে যে খুব বিপজ্জনক হবে তাতে কোনো সন্দেহ নেই।

বিহারের সাম্প্রতিক ঘটনাবলিতে নীতীশ কুমারের চিন্তিত হওয়ার যথেষ্ট কারণ আছে। বিপদটা ঠিক এ দিক থেকে আসতে পারে ভাবতেই পারেননি তিনি।

Loading videos...

উল্লেখ্য, বিহারের আসন্ন ভোটে বিজেপির মিত্র দল লোক জনশক্তি পার্টির সঙ্গে জোট হয়নি নীতীশ কুমারের। চিরাগ একাই ভোটে লড়ছেন। তিনি বলেছেন, তিনি বিজেপির বন্ধুই রয়েছেন, কিন্তু মুখ্যমন্ত্রীর বিরুদ্ধে লড়ছেন।

এই পরিস্থিতিতে লোক জনশক্তি পার্টির সুপ্রিমো রামবিলাস পাসোয়ানের প্রয়াণে তাঁর পুত্র চিরাগের সঙ্গে নীতীশ কুমার যে আচরণ করেছেন, তার সমালোচনা করেছেন তেজস্বী যাদব।

সোমবার সকালে লালুপ্রসাদের পুত্র আরজেডি নেতা তেজস্বী যাদব সাংবাদিকদের বলেন, “চিরাগ পাসোয়ানের সঙ্গে নীতীশ কুমার জি যা করলেন, তা ভালো নয়। আগে যতটা দরকার হত, তার চেয়ে এখন বাবাকে অনেক বেশি দরকার চিরাগ পাসোয়ানের। কিন্তু রামবিলাস পাসোয়ান আমাদের মধ্যে নেই। আর আমরা এর জন্য খুব দুঃখিত। কিন্তু নীতীশ কুমার যে আচরণ করলেন…চিরাগ পাসোয়ানের প্রতি অবিচার করলেন।”

তিন দিন আগে এনডিটিভি-র সঙ্গে এক সাক্ষাৎকারে চিরাগ বলেন, তাঁর বাবা কেন্দ্রীয় মন্ত্রী রামবিলাস পাসোয়ানের মৃত্যুর পর নীতীশ কুমার যা করলেন তাতে তিনি আহত হয়েছেন। নীতীশ তাকে চিনতেই পারলেন না। দুঃখ প্রকাশ করে একটা শব্দও তাঁকে বা তাঁর মা-কে বলেননি।

চিরাগ জানান, তাঁর বাবার দেহ যখন দিল্লি থেকে পটনা নিয়ে আসা হল, সেই সময় শ্রদ্ধা জানানোর জন্য বিমানবন্দরে উপস্থিত ছিলেন নীতীশ কুমার। তিনি তাঁকে চিনতেই পারলেন না। চিরাগের কথায়, “আমি তাঁর পা ছুঁলাম, তিনি আমাকে উপেক্ষা করলেন। ব্যাপারটা সবাই দেখেছে। আমাদের ব্যক্তিগত মনোভাবের জন্য মৌলিক শিষ্টাচার পর্যন্ত ভুলতে বসেছি। ঘটনায় খুব দুঃখ পেয়েছি।”

চিরাগের সমর্থনে তেজস্বীর বিবৃতিতে ওয়াকিবহাল মহল অন্য রকম কৌশলের গন্ধ পাচ্ছে। দু’ জনেরই বাবা পুরোনো বন্ধু এবং সমাজবাদী আন্দোলনের ইতিহাসে নীতীশ কুমারের পাশাপাশি এঁদেরও জায়গা রয়েছে।

৮ অক্টোবর রামবিলাস পাসোয়ানের মৃত্যুতে গভীর শোকপ্রকাশ করেন তেজস্বীর বাবা লালুপ্রসাদ। তাঁর মা বিহারের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী রাবড়ি দেবী জানান, তাঁদের পরিবার শোকাচ্ছন্ন। নীতিশ কুমারও শ্রদ্ধা জানান। কিন্তু দৃশ্যত চিরাগের সঙ্গে শীতল আচরণ করেন। গত কয়েক মাস ধরে চিরাগ ক্রমাগত নীতীশের সমালোচনা করে আসছেন।

যে হেতু নীতীশ তাঁদের অভিন্ন শত্রু, সে হেতু তেজস্বী আর চিরাগ রাঘোপুর কেন্দ্রে তলে তলে একটা বোঝাপড়া করে নিয়েছেন বলে জানা গিয়েছে। রাঘোপুর থেকে লড়ছেন তেজস্বী। ওই কেন্দ্রে তেজস্বীর বিরুদ্ধে শাসক জোটের প্রার্থী বিজেপির সতীশ যাদব। এই সতীশ যাদব ২০১০-এর ভোটে নীতীশ কুমারের দল জেডি (ইউ) প্রাথী হয়ে রাবড়ি দেবীকে হারিয়েছিলেন। ২০১৫-এর ভোটে সতীশ বিজেপি প্রার্থী হয়ে লড়ে তেজস্বীর কাছে হেরে যান।

এই রাঘোপুর কেন্দ্রে সাধারণত যাদব ভোট যায় তেজস্বীর ঝুলিতে আর রাজপুত-সহ উচ্চবর্ণের ভোট যায় বিজেপির ঝুলিতে। এই কেন্দ্রে চিরাগ তাঁর দলের প্রার্থী হিসাবে একজন রাজপুতকে দাঁড় করিয়েছেন। সূত্রের খবর, এই প্রার্থী ভাগ বসাবেন বিজেপিরই ভোটে, ফলে সুবিধা হবে তেজস্বীর।

খবরঅনলাইনে আরও পড়ুন

রাজ্যের সব পুজো প্যান্ডেল ‘নো এন্ট্রি জোন’, ঐতিহাসিক রায় কলকাতা হাইকোর্টের                

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.