tejaswi yadav and rahul gandhi

ওয়েবডেস্ক: বিজেপি বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলিকে এক ছাতায় নিয়ে আসার চেষ্টা করছে কংগ্রেস। অনেকে সেই ডাকে সাড়া দিলেও কয়েকটি দল বলেছে বিরোধী জোটে কংগ্রেসের নেতৃত্ব তারা মেনে নেবে না। জোট যদি তৈরি হয়ও, কংগ্রেসের ভূমিকা নিয়ে যখন বিভিন্ন আঞ্চলিক দল ভিন্ন মত পোষণ করছে, ঠিক তখনই উল্লেখযোগ্য মন্তব্য করলেন বিহারের বিরোধী দলনেতা তেজস্বী যাদব। সাফ জানিয়ে দিলেন, কংগ্রেসের নেতৃত্ব ছাড়া বিরোধীরা জোটবদ্ধ হতে পারবে না।

একটি সাংবাদিক সম্মেলনে তেজস্বী বলেন, অতীতে বেশ কয়েক বার তৃতীয় ফ্রন্ট সরকার গঠনের চেষ্টা হলেও, কংগ্রেস সেই জোটে ছিল না বলে সরকার বেশি দিন টিকতে পারেনি। বিরোধী জোটের অনেক নেতানেত্রীই রাহুলকে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে মেনে নেবে না বলেও জানা গিয়েছে। কিন্তু তেজস্বী মনে করেন, কংগ্রেস যদি আসন্ন নির্বাচনে একক বৃহত্তম দল হয় তা হলে রাহুলের প্রধানমন্ত্রী হওয়ায় কোনো প্রশ্নচিহ্ন আসা উচিত নয়।

তিনি বলেন, “যে জোটে কংগ্রেস ছিল, সেই জোট সরকার পুরো স্থায়ী ছিল। ইউপিএ ১ আর ইউপিএ ২-এর কথাই ভেবে দেখুন। কংগ্রেস এখন বৃহত্তম বিরোধী দল। বিরোধীদের ঐক্যবদ্ধ করার দায়িত্ব এখন কংগ্রেসকেই নিতে হবে। দেশের জন্য আমাদের সব ইগোকে জলাঞ্জলি দিতে হবে। যেখানে কংগ্রেস শক্তিশালী সেখানে তাদের হাতে আরও ক্ষমতা দিতে হবে।”

বিরোধীরা জোটবদ্ধ হলে বিজেপির হাল কী হতে পারে সেটা সাম্প্রতিক উপনির্বাচনেই দেখা গিয়েছে। কৈরানা, গোরখপুর এবং ফুলপুর কেন্দ্রে ধুলিসাৎ  হয়ে গিয়েছে বিজেপি। এই আবহে বিরোধী জোটকে আরও শক্তিশালী করার আহ্বান করা হচ্ছে। রাহুলের প্রসঙ্গে তেজস্বী আরও বলেন, “মানুষ যদি রাহুলকে ২০১৯-এ প্রধানমন্ত্রী দেখতে চান, তা হলে কেউ তাঁকে আটকাতে পারবে না।”

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here