নয়াদিল্লি: বিমানের গন্তব্য ছিল দিল্লি থেকে হায়দরাবাদ। আচমকা গুরুতর অসুস্থ এক যাত্রী। এগিয়ে এলেন এক চিকিৎসক। প্রাণ বাঁচালেন সহযাত্রীর। ওই চিকিৎসক অন্য কেউ নন, তিনি তেলঙ্গনার রাজ্যপাল তামিলিসাই সৌন্দর্যরাজন।

রাজনীতিতে পা রাখার আগে ডাক্তারি করতেন তেলঙ্গনার রাজ্যপাল। পেশায় ছিলেন স্ত্রীরোগ বিশেষজ্ঞ। রাজনীতিতে আসার আগে তিনি নিয়মিত রোগী দেখতেন। আকাশপথে সহযাত্রী অসুস্থ হয়ে পড়ায় তাঁর স্বাস্থ্যপরীক্ষা করে সৌন্দর্যরাজন। সঙ্গে সঙ্গে প্রয়োজনীয় ওষুধও দেন।

বারণসী থেকে দিল্লি হয়ে হায়দরাবাদে ফিরছিলেন তেলঙ্গনার রাজ্যপাল। বিমানকর্মীদের কাছ থেকেই জানতে পারেন এক যাত্রী গুরুতর অসুস্থতা বোধ করছেন। অবিলম্বে তাঁর চিকিৎসার দরকার। শোনা মাত্রই চিকিৎসার কাজে ঝাঁপিয়ে পড়েন সৌন্দর্যরাজন। তাৎক্ষণিক চিকিৎসায় সুস্থ হয়ে ওঠেন ওই অসুস্থ বিমানযাত্রী। বিমানবন্দরে অবতরণের পর তাঁকে সেখানকার মেডিক্যাল বুথে নিয়ে যাওয়া হয়।

এর পর টুইটারে রাজ্যপাল লেখেন, “আমি বিমানের পিছনের দিকে গিয়ে দেখি একজন যাত্রী প্রচুর ঘামছেন, তাঁকে তন্দ্রাচ্ছন্ন দেখতে লাগছিল। দেখে মনে হয়, তাঁর বদহজমের উপসর্গ রয়েছে। তৎক্ষণাৎ তাঁকে শুইয়ে দিয়ে প্রাথমিক চিকিৎসা করি ও ওষুধ দিই। অন্য শারীরিক গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলি পরীক্ষাও করি। সহযাত্রীদের মতোই তাঁর মুখে পরে হাসি ফিরে আসে।”

বলে রাখা ভালো, সম্প্রতি বন্যা কবলিত হয়েছে তেলঙ্গনার একাধিক অঞ্চল। সেই এলাকার পরিস্থিতি সরজমিনে খতিয়ে দেখতে যান রাজ্যপাল। অবিরাম বৃষ্টি এবংপিচ্ছিল পথের বাধা অতিক্রম করে ঘুরে দেখেন বিভিন্ন এলাকা। পরিদর্শন করেন ত্রাণশিবিরগুলি। বন্যাবিধ্বস্ত এলাকার মানুষের সঙ্গে কথা বলে তাঁদের সহযোগিতার আশ্বাস দেন তিনি। সঙ্গে নিয়ে গিয়েছিলেন ইন্ডিয়ান রেড ক্রস সোসাইটি এবং লায়ন্স ক্লাবের সংগৃহীত ওষুধ, ত্রিপল, খাদ্য সামগ্রী। সে সবও বিতরণ করেন বন্যাদুর্গতদের মধ্যে।

আরও পড়তে পারেন:

নিট পিজি ২০২২ কাউন্সেলিং শুরু ১ সেপ্টেম্বর, জানাল স্বাস্থ্যমন্ত্রক

মিডিয়া ট্রায়াল দেশকে পিছনের দিকে ঠেলে দিচ্ছে: প্রধান বিচারপতি

টাকা গোনা শেষ! কী কী পাওয়া গেল পার্থ-ঘনিষ্ঠ অর্পিতার ফ্ল্যাটে

পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে দিল্লি নিয়ে যাওয়া হতে পারে: সূত্র

এক মঞ্চে মমতা-অর্পিতা, পুরনো ভিডিও প্রকাশ করল বিজেপি

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন