rajasthan heat

ওয়েবডেস্ক: শুক্রবার সন্ধের পর থেকে উত্তর ভারতে বিস্তীর্ণ অঞ্চল প্রবল ধুলোঝড়ের কবলে পড়ে। স্বস্তির বৃষ্টি ভিজিয়ে দেয় দিল্লি-সহ একাধিক অঞ্চলকে। ঝড়বৃষ্টি হয়েছে রাজস্থানের কিছু অঞ্চলেও। তবে ঝড়বৃষ্টি শুরু হওয়ার আগে পর্যন্ত ছড়ি ঘুরিয়ে গিয়েছে প্রবল গরম। ৫০ ডিগ্রি পারদ ছুঁয়েছে কোথাও কোথাও।

ভারতের উষ্ণতম অঞ্চল হিসেবে রাজস্থানের চুরু একটা বিশেষ জায়গা করে নিয়েছে। গড়ে অন্তত দু’বছর অন্তর সেখানে পারদ ৫০ ডিগ্রির কাছাকাছি পৌঁছে যায়। এই মরশুমে শুক্রবারই প্রথম বার ৫০ ছুঁল চুরুর পারদ। শুক্রবার দুপুরে চুরুর সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয় ৪৯.৭ ডিগ্রি, স্বাভাবিকের থেকে যা আট ডিগ্রি সেলসিয়াস বেশি।

৫০-এর কাঁটায় একমাত্র শহর হিসেবে চুরু থাকলেও প্রতিযোগিতায় পিছিয়ে ছিল না রাজস্থানের বাকি শহরগুলোও। শ্রীগঙ্গানগরে তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয় ৪৯.১ ডিগ্রি সেলসিয়াস। তুলনায় কিছুটা কম ছিল মরুশহর জৈসলমেরের তাপমাত্রা। সেখানে পারদ ছিল ৪৬.১ ডিগ্রি সেলসিয়াস। রাজধানী জয়পুরেও প্রবল গরমে কাহিল হতে হয়েছে সাধারণ মানুষকে।

তবে এই গরমের মধ্যেই লুকিয়ে রয়েছে বর্ষাকে ত্বরান্বিত করার ইঙ্গিত। আবহাওয়া বিশেষজ্ঞদের মতে, মাটি যত গরম হবে তত বেশি তাপ উৎপন্ন হয়ে বায়ুমণ্ডলের ওপরের দিকে উঠে যাবে। তৈরি হবে একটি নিম্নচাপ বলয়। সেই নিম্নচাপ বলয় তৈরি হয়ে গেলে সমুদ্র থেকে দ্রুত গতিতে এগিয়ে আসবে মৌসুমি বায়ু। সুতরাং এখন যত বেশি গরম পড়বে তত বাড়বে তাড়াতাড়ি বর্ষার সম্ভাবনা।

অতএব বর্ষাকে তাড়াতাড়ি নিয়ে আসার জন্য এই প্রবল গরমে কাহিল হোক রাজস্থান, এটাই এখন মানুষের প্রত্যাশা।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here