কলকাতা: দক্ষিণ কলকাতার অভিজাত স্কুলে শিশু ছাত্রীর যৌন নির্যাতনের ঘটনাটি ছড়িয়ে পড়েছে গোটা বিশ্বে। এই স্কুলে ছাত্রীদের প্রতি যে অমানবিক আচরণ চলে আসছে তা নিয়ে শুরু হয়েছে তোলপাড়। সুদূর আমেরিকায় বসে টরোন্টোর ইয়র্ক বিশ্ববিদ্যালয়ে পাঠরতা ওই স্কুলের এক প্রাক্তন ছাত্রীর করা দীর্ঘকায় পোস্টে রীতিমতো চাঞ্চল্য পড়ে গিয়েছে। পড়ুয়াদের পঠন-পাঠনের দিকে সঠিক মনোযোগ না দিয়ে কীভাবে পদে পদে তাদের হেনস্থা করা হয়, সে সব কথাই তিনি তুলে ধরেছেন ওই পোস্টে।

জি়ডি বিড়লা স্কুলে চার বছরের ছাত্রীর উপর দুই শিক্ষকের পাশবিক অত্যাচারের ঘটনাটি নিয়ে চাপান-উতোর চলছে গত দুদিন ধরেই। দুজন অভিযুক্ত গ্রেফতার হয়েছে, বিশেষ তদন্ত কমিটি গঠন করেছে রাজ্য সরকার-এরপরেও ক্ষোভের আগুন নিভছে না। আজ সকালেই স্কুলের গেটে অনির্দিষ্ট কালের জন্যে স্কুল বন্ধের নোটিশ টাঙানো হয়েছে। একই সঙ্গে স্কুলের অধ্যক্ষাকে গ্রেফতারের দাবি জানিয়েছেন নির্যাতিত শিশুটির বাবা-মা। ঠিক এমন একটা সময়ে স্কুলের ভাইস প্রিন্সিপালের বিরুদ্ধে গুরুতর অভিযোগ আনলেন ওই স্কুলেরই প্রাক্তন ছাত্রী রূপকথা বসু।তাঁর বিস্তারিত মন্তব্যে ঝরে পড়েছে একরাশ ক্ষোভ। তিনি স্কুল পরিচালনমণ্ডলীকে মিথ্যুক আখ্যা দিয়ে লিখেছেন, ওরা যেমন ধনশালী তেমনই বলশালী। ঘুষ চাইতে বা ব্ল্যাকমেইল করতে সিদ্ধহস্ত। যত বেনিয়মই করুক না কেন, তা যাতে বাইরে না আসে তার জন্য পড়ুয়াদের দাবিয়ে রাখা হতো। কিন্তু তিনি যেহেতু এখন একটি বিশ্ববিদ্যালয়ে পাঠরতা তাই সে সব হুমকিকে পরোয়া করেন না। এখন বোর্ডের পরীক্ষা থেকে তাঁর নাম বাদ দেওয়ার হুমকিতে তো নয়-ই। সেই সাহসের উপর ভর করেই বছরের পর বছর ধরে ঘটে চলা এই ধরনের হিংসাত্মক বিষয়গুলি তিনি প্রকাশ্যে নিয়ে এসেছেন।

যখন তিনি ওই স্কুলে পড়াশোনা করতেন তখন নিজেকে তো বটেই সহপাঠীদেরও চোখের সামনে অত্যাচারিত হতে, অপমানিত হতে দেখেছেন। ছাত্রীদের চরিত্র নিয়েও প্রশ্ন উঠতে দেখেছেন। টানা ১৪ বছর ওই স্কুলে পড়াকালীন তিনি দেখেছেন বেশ কযেকজন আদর্শবান শিক্ষককে কীভাবে বিতাড়িত করা হয়েছে।

তিনি অভিযোগ করেছেন, আমাদের পিটি ক্লাসের ইউনিফর্ম ছিল সাদা রঙের। পাতলা টি-শার্টের ভিতর থেকে কিছু মেয়ের রঙিন ব্রা মৃদুভাবে দেখা দৃশ্যমান হওয়াটাই স্বাভাবিক। এটা নিয়ে হইচই দূরে থাক, কথা পাড়ারই প্রয়োজন হয় না। কিন্তু আমাদের ভাইস প্রেসিডেন্ট এই তুচ্ছ ব্যাপারটাকে নিয়ে তোলপাড় করতেন।তিনি ছাত্রীদের অপরাধী প্রমাণ করতেন। তিনি অভিযোগ করতেন, ছাত্রদের দৃষ্টি আকর্ষণের জন্যই এই কৌশল নিয়েছে ওই ছাত্রী। আর এ সব আলোচনা চলত সহপাঠী ছাত্রদের সামনেই।

সম্প্রতি টাইমস অব ইন্ডিয়ার  প্রকাশিত  রূপকথার পোস্টটি নিয়ে হইচই পড়ে গিয়েছে।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here