Rahul Gandhi
ছবি: টাইসম অব ইন্ডিয়া থেকে

নয়াদিল্লি: জাতীয় কংগ্রেসের সর্বোচ্চ নীতিনির্ধারক কমিটির বৈঠকে জোটের পক্ষেই সওয়াল করলেন সর্বভারতীয় সভাপতি রাহুল গান্ধী। কংগ্রেসের কার্যকরী সমিতির এই বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী ড. মনমোহন সিং, প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী পি চিদম্বরম, ইউপিএ চেয়ারপার্সন সনিয়া গান্ধী-সহ অন্যান্য উচ্চনেতৃত্ব। সভার মতে, আগামী ২০১৯ লোকসভা নির্বাচনে প্রাক-নির্বাচনী জোটের পক্ষেই রায় যায়।

এনডিটিভির কাছে রাহুল বলেন, “জোট প্রক্রিয়ার কাজ ইতিমধ্যেই শুরু হয়ে গিয়েছে। এ ব্যাপারে একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে”। তবে কোন রাজ্যে কার সঙ্গে জোট বাঁধতে চলেছে কংগ্রেস, সে প্রশ্নের উত্তর তিনি এড়িয়ে গিয়ে বলেন, “সমমনোভাবাপন্ন একাধিক রাজনৈতি্ক দলের সঙ্গে কথা চলছে”।

ইঙ্গিতবাহী ভাবে সংসদে অনাস্থা ভোট এবং সেই অনাস্থার স্বপক্ষে রাহুলের জোরালো বক্তব্য পেশ ও প্রধানমন্ত্রীকে আলিঙ্গন করা নিয়ে উদ্ভুত বিতর্কের পরপরই বিশেষ বৈঠকে বসল কংগ্রেস কার্যকরী সমিতি। এ দিনের বৈঠকে সনিয়া বলেন, “জোটগঠন নিয়ে তাঁর (রাহুলের) সিদ্ধান্তকে সমর্থন করে আমরা সর্বতো ভাবে সহযোগিতা করতে বদ্ধপরিকর। সারা দেশে যে ভাবে অগণতান্ত্রিক পরিবেশ কায়েম হয়েছে, তার অবসানে ২০১৯-এ কংগ্রেস জোটের উপরই জোর দেবে”।

সূত্রের খবর, বৈঠকে সম্ভাব্য জোট সংক্রান্ত রূপরেখা পেশ করেন প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী পি চিদম্বরম। তিনি বলেন, দেশের ১২টি রাজ্যে কংগ্রেসের শক্তপোক্ত সংগঠন ও ভোট রয়েছে। ওই ১২টি রাজ্য থেকে আগামী লোকসভা নির্বাচনে ১৫০টি আসন জয়ের আশা করা যেতে পারে। বাকি রাজ্যগুলিতে সমমনোভাবাপন্ন দলগুলির সঙ্গে জোটবদ্ধ ভাবে লড়াই করে আরও ১৫০টি আসনে জয়লাভ নিশ্চিত করতে হবে।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here