'Martyrs' of bjp

ওয়েবডেস্ক: কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের কাছে পাঠানো দলের ‘শহিদ’ তালিকায় থাকা ২৩ জন ব্যক্তির মধ্যে কর্নাটকে হদিশ মিলল এক জীবিত ব্যক্তির। সংবাদ মাধ্যমের ক্যামেরার সামনে দাঁড়িয়ে যিনি বললেন, “দেখুন আমি তো মরিনি”।

গত বছর স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকে একটি তালিকা পাঠান কর্নাটকের উদুপি কেন্দ্রের বিধায়ক শোভা করন্দলাজে। তাঁর দাবি ছিল, রাজ্যে কংগ্রেসের শাসনে বিজেপির ২৩ জন সমর্থককে খুন করেছে জেহাদিরা। এই নিয়ে সে সময় বেশ হইচইও হয় রাজ্য জুড়ে। কিন্তু বিধানসভার ভোট-উত্তপ্ত কর্নাটকে আচমকা উদয় হলেন অশোক পূজারি নামের সেই ব্যক্তি। ওই বিধায়কের পাঠানো তালিকার শীর্ষে ছিল এই অশোকের নাম।

শোভার চিঠির বয়ান অনুযায়ী, ২০১৫ সালের ২০ সেপ্টেম্বর আততায়ীদের হাতে নৃশংস ভাবে খুন হন অশোক।

মেঙ্গালুরু থেকে কিছুটা দূরে উদুপির একটি গ্রামের বাসিন্দা অশোক। এনডিটিভির কাছে সাক্ষাৎকার দেওয়ার সময় তিনি দাবি করেন, তিনি এলাকার বজরং দল এবং বিজেপির একজন কর্মী। ২০১৫ সালে তিনটি মোটরবাইকে চড়ে ছ’জন দুষ্কৃতী তাঁর উপর চড়াও হয়। ড্রাম বাদনে দক্ষ অশোক কাজ থেকে ফেরার সময় মাথায় একটি গেরুয়া কাপড় বেঁধে থাকায় দুষ্কৃতীরা তাঁকে সহজেই চিনে ফেলে।

আরও পড়ুন: দুর্নীতি, প্রতারণা ও জালিয়াতির ২৩টি মামলায় অভিযুক্তই বিজেপির মুখ্যমন্ত্রী পদপ্রার্থী?

আক্রমণের শিকার হয়ে টানা ১৫ দিন অশোক হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন। কিন্তু প্রাণে বেঁচে যান। এই ঘটনার পর বিধায়ক তাঁকে ফোন করে বলেন, “ভুল করে তোমার নামটাও শহিদ তালিকায় চলে গিয়েছে”।

জানা গিয়েছে, এখনও সংগঠনের কাজের পাশাপাশি বিবাহ অনুষ্ঠানের ব্যান্ডে ড্রাম বাজাচ্ছেন ওই তালিকাভুক্ত ‘শহিদ’ অশোক।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here