ওয়েবডেস্ক: করোনাভাইরাস ভ্যাকসিন (Coronavirus vaccine) “আগামী ২০২১ সালের আগে প্রয়োগের জন্য প্রস্তুত হবে না” বলেই প্রেস ইনফরমেশন ব্যুরোর (PIB) ওয়েবসাইটে জানিয়েছিল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিমন্ত্রক (Ministry of Science and Technology)। তবে কিছুক্ষণের মধ্যেই সেই সময়সীমা মুছে দেওয়া হয় বলে সংবাদ মাধ্যম সূত্রের খবর।

এর আগে স্বাস্থ্য মন্ত্রকের অধীনস্থ ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অব মেডিক্যাল রিসার্চ (আইসিএমআর) জানিয়ে দিয়েছিল, আগামী ৭ জুলাই থেকে পরবর্তী পাঁচ সপ্তাহ অর্থাৎ ১৫ অগস্টের মধ্যে সব পরীক্ষা শেষ করে বাজারে আনতে হবে কোভ্যাক্সিন টিকা। যা নিয়ে প্রবল বিতর্কের সৃষ্টি হয়। একটি ভ্যাকসিন বাজারজাত করার আগে যে ধাপগুলি অতিক্রম করতে হয়, তা এই সময়কালের মধ্যে সম্পূর্ণ করা সম্ভব নয় বলেই দাবি করেছিলেন বিশেষজ্ঞরা।

Loading videos...

এমনকী আগামী স্বাধীনতা দিবসে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী যাতে এই ভ্যাকসিনের আনুষ্ঠানিক ঘোষণা করতে পারেন, তেমন রাজনৈতিক উদ্দেশের কথা তুলে ধরা হয় বিরোধী দলগুলির তরফে।

তবে গত শনিবার নিজের অবস্থান স্পষ্ট করে আইসিএমআর (ICMR) ফের জানিয়ে দেয়, লাল ফিতের জট এড়াতেই ওই পরামর্শ দেওয়া হয়েছিল। দ্রুত কাজ করতে গিয়ে কোনও ভাবেই মানুষের প্রাণের সঙ্গে ঝুঁকি নেওয়া হবে না।

রবিবার বিজ্ঞানমন্ত্রক জানায়, “ছ’টি ভারতীয় সংস্থা একটি কোভিড -১৯ ভ্যাকসিন নিয়ে কাজ করছে। দু’টি ভারতীয় ভ্যাকসিন কোভ্যাক্সিন (COVAXIN) এবং জাইকভ-ডি (ZyCov-D)-র পাশাপাশি, বিশ্বের মোট ১৪০টির মধ্যে ১১টিরও বেশি ভ্যাকসিন মানবশরীরে পরীক্ষার পর্যায়ে রয়েছে।”

সংবাদ মাধ্যম সূত্রে খবর, প্রথমের প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এখানেই ছিল, “এর কোনোটিরই ২০২১ সালের আগে মানুষের শরীরে ব্যাপক ব্যবহারের জন্য প্রস্তুত হওয়ার সম্ভাবনা নেই”। কিন্তু কয়েক মুহূর্তের মধ্যেই তা মুছে ফেলা হয়। ফের সংশোধিত বিজ্ঞপ্তি প্রকাশিত হয়।

পরের বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, “মানুষের শরীরে ভ্যাকসিনগুলির পরীক্ষা পরিচালনার জন্য সেন্ট্রাল ড্রাগস স্ট্যান্ডার্ড কন্ট্রোল অর্গানাইজেশন (CDSCO)-এর ড্রাগ কন্ট্রোলার জেনারেল অব ইন্ডিয়া ‘সমাপ্তির শুরু চিহ্নিত’ করেছে”।

কোন পর্যায়ে রয়েছে ভারতীয় ভ্যাকসিন?

ভারতীয় দু’টি ভ্যাকসিনই দ্বিতীয় এবং তৃতীয় পর্যায়ের পরীক্ষার জন্য অনুমোদন পেয়েছে। প্রথম দু’টি পর্যায়ে ভ্যাকসিনের সুরক্ষার দিকটি পরীক্ষা করা হয়। তৃতীয় পর্যায়ে ওষুধের কার্যকারিতা পরীক্ষা করা হয়।

প্রত্যেকটি পর্যায়ের জন্যই কয়েক মাস সময় লাগে। যে কারণে আইসিএমআরের বেঁধে দেওয়া সময়সীমা মেনে ভ্যাকসিনগুলি বাজারে আনার ঘোষণাও অপ্রত্যাশিত বলে দাবি করা হয়।

শনিবার অবশ্য আইসিএমআর স্পষ্ট করে জানিয়ে দেয়, ভ্যাকসিন তৈরিতে সারা বিশ্ব যে নীতি অনুসরণ করে এগোচ্ছে, ভারতেও তা মেনে চলা হবে।

তবে আইসিএমআরের প্রথম ঘোষণার পর কংগ্রেস নেতা জয়রাম রমেশ জানিয়ে ছিলেন, আগামী ১০ জুলাই বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রকের স্থায়ী কমিটির বৈঠকে বিষয়টির ব্যাখ্যা চাওয়া হবে।

তার আগেই এ দিন বিষয়টি নিয়ে নিজেদের অবস্থান জানিয়ে দিল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিমন্ত্রক। তবে তা নিয়েও বিতর্ক রয়েই গেল!

নির্দেশে কী বলেছিল আইসিএমআর/ কেন বিতর্ক?

দেখুন এখানে ক্লিক করে: “১৫ আগস্টেই বাজারে আসবে, তবে ২০২১-এ,” কোভ্যাক্সিন নিয়ে সরকারি সময়সীমার তীব্র নিন্দা বিশেষজ্ঞদের

আরও পড়তে পারেন: ১৫ আগস্ট? করোনা ভ্যাকসিনের দিনক্ষণ বেঁধে দেওয়া নিয়ে অবস্থান স্পষ্ট করল আইসিএমআর

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.