Supreme court

নয়াদিল্লি: ফ্রান্সের সঙ্গে ভারতের প্রতিরক্ষা সংক্রান্ত রাফাল চুক্তি নিয়ে রাজনৈতিক মহল সরগরম। এই সংক্রান্ত একটি মামলার শুনানিতে বুধবার সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈর নেতৃত্বে গঠিত তিন বিচারপতির বেঞ্চ কেন্দ্রের কাছে জানতে চাইল, কীভাবে এবং কোন পরিস্থিতিতে ওই যুদ্ধবিমান কেনার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল?

সুপ্রিম কোর্টের বেঞ্চ কেন্দ্রের উদ্দেশে জানায়, আগামী ২৯ অক্টোবরের মধ্যে এই সমস্ত প্রশ্নের উত্তর স্পষ্ট করতে হবে। কারণ, এই মামলার পরিবর্তী শুনানির দিন হিসাবে ধার্য্য হয়েছে আগামী ৩১ অক্টোবর। তবে একই সঙ্গে সর্বোচ্চ আদালত জানিয়েছে, প্রশ্নগুলির উত্তর স্পষ্ট করার কথা বলা হলেও এ মুহূর্তে আদালতের তরফে কেন্দ্রকে কোনো নোটিশ দেওয়া হচ্ছে না।

যদিও নোটিশ না দিয়েও আদালতের এই জানতে চাওয়ার বিষয়টি মোটেই স্বস্তিতে রাখছে না শাসক শিবিরকে। আদালত মনে করে, আবেদনকারী যে যুক্তিগুলি উপস্থাপন করেছেন, তা পর্যাপ্ত নয়। ফলে কেন্দ্রের কাছে আপাত ভাবে সুপ্রিম কোর্ট নির্দিষ্ট ওই প্রশ্নগুলির স্পষ্ট উত্তর আশা করে। বেঞ্চ জানায়, এটা একটা স্পর্শকাতর বিষয়। ফলে সম্পূর্ণ বিষয়টা সম্পর্কে অবহিত না হয়ে কোনো রকমের সিদ্ধান্তে তাদের পক্ষে উপনীত হওয়া সম্ভব নয়।

রায়বরেলির কাছে দুর্ঘটনায় নিউ ফরাক্কা এক্সপ্রেস, মৃত অন্তত ৭

উল্লেখ্য, ফ্রান্সের সঙ্গে রাফাল যুদ্ধ বিমান কেনার চুক্তিতে আর্থিক অসামঞ্জস্যের অভিযোগ তুলে সুপ্রিম কোর্টে আবেদন দাখিল করেন আইনজীবী এল এম শর্মা। তিনি পুরো তদন্তটিকে আদালতের পর্যবেক্ষণে পরিচালনার আবেদন জানিয়েছিলেন। তিনি অভিযোগপত্রে জানিয়েছেন, ফ্রান্সের দসাল্ত থেকে ৩৬টি রাফাল যুদ্ধবিমান কেনার চুক্তিতে প্রায় ৫৯,০০০ কোটি টাকার দুর্নীতি হয়েছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন