নয়াদিল্লি : ৬ ফেব্রুয়ারির মধ্যে ছ’শো কোটি টাকা ‘সেবি’কে ফেরত দিতে না পারলে পাকাপাকি ভাবে কারাবাসে যেতে হবে – সহারাকর্তাকে এমন নির্দেশ দিল দেশের সর্বোচ্চ আদালত। শীর্ষ আদালতের কাছে টাকা ফেরতের শেষ দিন পিছিয়ে দেওয়ার আর্জি জানিয়েছিলেন সহারাকর্তা সুব্রত রায়। বৃহস্পতিবার সেই অবেদন খারিজ করে দিল শীর্ষ আদালত।

গত বছর ২৮ নভেম্বর তৎকালীন প্রধান বিচারপতি টি এস ঠাকুর, বিচারপতি রঞ্জন গগই এবং বিচারপতি এ কে সিক্রির সম্মিলিত বেঞ্চ সহারাকর্তার আইনজীবীকে জানিয়েছিল, ২০১৭ সালের ৬ ফেব্রুয়ারির মধ্যে ওই পরিমাণ টাকা ফেরত দিতে হবে। কারণ আদালত চায় না কাউকে আবার কারাবন্দি করতে।

টানা দু’ বছর জেলে থাকার পর মে মাসে সুব্রত রায় জামিন পান। কিন্তু গত নভেম্বরে নোটবন্দি ও অর্থনৈতিক শ্লথতার কারণ দেখিয়ে সুব্রত রায় আরও সময় চেয়ে আবেদন জানান আদালতে। কিন্তু আদালত জানিয়ে দেয়, সহারাপ্রধানকে ইতিমধ্যেই অনেক সুযোগ দেওয়া হয়েছে, যা অন্য কোনো মামলার ক্ষেত্রে দেওয়া হয় না। তা ছাড়া প্রায় আড়াই বছর সময় পেয়েছেন তিনি। তাই এই নির্দেশ না মানা হলে পাকাপাকি ভাবে জেলে যেতে হবে তাঁকে।

প্রসঙ্গত, এর আগেই সর্বোচ্চ আদালত সংস্থাকে টাকা শোধ করার ক্ষেত্রে লন্ডন ব্যাঙ্ক থেকে ২৮৫ কোটি টাকা সরাসরি সেবিকে দেওয়ার সুযোগ দিয়েছিল।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here