ভারতের এই শহরগুলি ৩ ফুট পর্যন্ত জলের নীচে চলে যেতে পারে, বিপদঘণ্টা আইপিসিসি রিপোর্টে

0

খবর অনলাইন ডেস্ক: ভারতের জন্য মারাত্মক সতর্কতাবার্তা! জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ক ইন্টার-গভর্নমেন্টাল প্যানেল অন ক্লাইমেট চেঞ্জ বা আইপিসিসি (IPCC)-র রিপোর্টে উল্লেখ করা হয়েছে, সমুদ্রপৃষ্ঠের উচ্চতাবৃদ্ধির কারণে শতাব্দীর শেষের দিকে দেশের ১২টি উপকূলীয় শহর তলিয়ে যাওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।

এমনিতেই আবহাওয়ার ধরন এবং পরিবেশগত কারণগুলির মধ্যে একটি অনিশ্চিত বিপর্যয়ের ইঙ্গিত ধরা পড়েছে। সবচেয়ে বিপজ্জনক এবং ঝুঁকিপূর্ণ কারণ হচ্ছে সমুদ্রপৃষ্ঠের উচ্চতাবৃদ্ধির বিষয়টি।

Shyamsundar

আশঙ্কা করা হচ্ছে, শতাব্দীর শেষের দিকে বেশ কিছু শহর তিন ফুট পর্যন্ত জলের নীচে চলে যেতে পারে। জলবায়ু পরিবর্তনের প্রতিবেদনে এ ব্যাপারে সতর্ক করা হয়েছে। শহরগুলির মধ্যে রয়েছে মুম্বই, চেন্নাই, কোচি এবং বিশাখাপত্তনম।

কী বলছে নাসার বিশ্লেষণ?

ইতিমধ্যেই জলবায়ু পরিবর্তন নিয়ে চূড়ান্ত সংকেত দিয়েছে রাষ্ট্রপুঞ্জ। গত সোমবার ১৯৫টি সদস্য দেশকে নিয়ে বৈঠকে জলবায়ু পরিবর্তনের ষষ্ঠ রিপোর্ট প্রকাশ করেছে রাষ্ট্রপুঞ্জের আন্তর্জাতিক প্যানেল আইপিসি। সমুদ্রের জলস্তর সংক্রান্ত এই বিষয়টির বিশ্লেষণ করেছে নাসা (NASA)। জানা গিয়েছে, মহাকাশ গবেষণাকারী সংস্থা ১২টি ভারতীয় শহরকে চিহ্নিত করেছে। বলা হয়েছে, ওই পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ না করলে শহরগুলির জলবায়ু পরিবর্তনের শিকার হতে পারে এবং সেখানকার সমুদ্রের উচ্চতা বৃদ্ধি পেতে পারে।

আইপিসিসি রিপোর্ট ইঙ্গিত দিয়েছে, বিশ্বের গড় হারের থেকে এশিয়ার চারপাশে সমুদ্রপৃষ্ঠের গড় উচ্চতা দ্রুত হারে বৃদ্ধি পাচ্ছে। অতীতে ১০০ বছরে মাত্র এক বার সমুদ্রপৃষ্ঠের চরম উচ্চতাবৃদ্ধি দেখা গেলেও আগামী ২০২৫ সালের মধ্যে তা প্রতি ৬-৯ বছরে এক বার করে ঘটতে পারে।

১২টি ভারতীয় শহর

রিপোর্টে বলা হয়েছে, বেশ কিছু ভারতীয় শহর জলবায়ু পরিবর্তনের শিকার হবে। বিশেষত, সেখানকার সমুদ্রের জলস্তরের উচ্চতা বাড়ার আশঙ্কা রয়েছে। বর্তমান হার অব্যাহত থাকলে শতাব্দীর শেষ দিকে এই শহরগুলি তিন ফুট পর্যন্ত জলের নীচে চলে যেতে পারে-

১. কন্ডলা: ১.৮৭ ফুট

২. ওখা: ১.৯৬ ফুট

৩. ভাবনগর: ২.৭০ ফুট

৪. মুম্বই: ১.৯০ ফুট

৫, মোরমুগাঁও: ২.০৬ ফুট

৬. ম্যাঙ্গালোর: ১.৮৭ ফুট

৭. কোচিন: ২.৩২ ফুট

৮. পারাদীপ: ১.৯৩ ফুট

৯. খিদিরপুর: ০.৪৯ ফুট

১০. বিশাখাপত্তনম: ১.৭৭ ফুট

১১. চেন্নাই: ১.৮৭ ফুট

১২. তুতিকোরিন: ১.৯ ফুট

খবর অনলাইন-এর অন্যান্য প্রতিবেদন পড়ুন এখানে: khaboronline.com

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন