TMC
শিলচর বিমানবন্দর। ছবি: এনডিটিভি থেকে

ওয়েবডেস্ক: অসমের শিলচর বিমানবন্দরে তৃণমূল কংগ্রেসের আট সদস্যের প্রতিনিধি দলকে আটকে দেওয়া হয়েছে বৃহস্পতিবার। লোকসভায় দলের পরিষদীয় নেতা ডেরেক ও ব্রায়ান এই ঘটনার পর জানান, “সমস্ত প্রটোকল মেনেই তৃণমূলের প্রতিনিধি দল অসম গিয়েছে, তবুও তাদের আটকে দেওয়ার ঘটনাতেই প্রমাণ হল অসমে আদতে ‘অঘোষিত জরুরি অবস্থা’ জারি হয়েছে”।

অসমে খসড়া নাগরিকপঞ্জি প্রকাশের পর তালিকা থেকে বাদ পড়েছে ৪০ লক্ষের উপর মানুষের নাম। সেই ঘটনার প্রতিবাদ জানাতেই অসমে প্রতিনিধি দল পাঠানোর সিদ্ধান্ত নেয় তৃণমূল। কিন্তু এ দিন আট সদস্যের ওই প্রতিনিধি দল শিলচর বিমানবন্দরে পৌঁছানোর পরই তাদের আটকে দেওয়া হয়। দলের সদস্য সাংসদ সুখেন্দুশেখর রায় বলেন, “আটকে রাখলে বিমানবন্দরেই সারা রাত বসে থাকব। পিছু হঠার কোনো কারণ নেই”। ডেরেক জানান, “সুখেন্দুবাবুর বুকে পেস মেকার বসানো রয়েছে, তিনি অসুস্থ”। তাঁকেও হেনস্থা করা হয়েছে। মারধর করার অভিযোগ উঠেছে মহিলা সদস্যদেরও।

এ দিন দুপুর ১টার সময় দিল্লি থেকে যাত্রা শুরু করে ওই প্রতিনিধি দল। যেখানে রয়েছেন সাংসদ সুখেন্দুশেখর রায়, রত্না দেনাগ, কাকলি ঘোষদস্তিদার, নাদিমূল হক, মমতাবালা ঠাকুর, অর্পিতা ঘোষ এবং বিধায়ক মহুয়া মৈত্র। প্রতিনিধি দলের নেতৃত্বে আছেন রাজ্যের মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম। তাঁরা বিমানবন্দরে পৌঁছানো মাত্র পুলিশ আটকে দেয়। বাইরে জড়ো হয়েছেন অসংখ্য বিক্ষোভ প্রদর্শনকারী।

আরও পড়ুন: অসমে আটকে দেওয়া হল তৃণমূলের প্রতিনিধি দলকে, প্রতিবাদে অবস্থান বিমানবন্দরে

প্রতিনিধি দলের সদস্যদের যেমন বাইরে বেরোতে দেওয়া হয়নি, তেমনই বাইরে থেকেও কাউকে ভিতরে ঢুকতে দেয়নি পুলিশ। তারা জানিয়েছে, জেলা জুড়ে বড়ো আকারের জমায়েত নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন