madrasa teaches sanskrit

ওয়েবডেস্ক: ভারত বহু জাতি, বহু ভাষার দেশ। আবার উত্তরপ্রদেশকে তিনটে ভাষার পীঠস্থান বলা চলে। সেই তিনটে ভাষা হল হিন্দি, উর্দু এবং সংস্কৃত। কিন্তু ইদানীং কালে ভাষার সঙ্গে জাত এবং ধর্মের একটা সম্পর্ক তৈরি করার চেষ্টা চলে। যেমন উর্দুর সঙ্গে ইসলাম ধর্মের সম্পর্ক তৈরি করা হয়, তেমনই সংস্কৃতের সঙ্গে হিন্দু ধর্মের সম্পর্ক তৈরি করার চেষ্টা করা হয়। তবে ভাষার সঙ্গে ধর্মের এই সম্পর্কটি মেনে নিতে চায় না গোরখপুরের একটি মাদ্রাসা। তাই তো সেখানে বিভিন্ন বিষয়ের পাশাপাশি সংস্কৃতও শেখানো হয়।

গোরখপুরের দারুল উলুম হাসানিয়া মাদ্রাসায় পড়ানো সংস্কৃত বিষয়টিকে বেশ উপভোগ করে পড়ুয়ারা। এমনই জানিয়েছে বেশ কয়েক জন পড়ুয়া। সংস্কৃত ছাড়াও সেখানে পড়ানো হয় হিন্দি, উর্দু এবং ইংরেজিও।

মাদ্রাসার এক পড়ুয়া এএনআইকে বলে, “আমাদের সংস্কৃত পড়তে খুব ভালো লাগে। শিক্ষকরাও খুব ভালো ভাবে সহজ পদ্ধতিতে এই ভাষা শেখান। বাড়িতে আমাদের অভিভাবকরাও এই বিষয়ে আমাদের অনেক সাহায্য করেন।”

সাধারণত মাদ্রাসার ব্যাপারে ধারণা হয়েছে যে আধুনিক মানের পঠনপাঠন সেখানে হয় না এবং মূলত ইসলাম শিক্ষা দেওয়া হয় মাদ্রাসাগুলিতে। তবে তাঁর মাদ্রাসা যে অন্যদের থেকে আলাদা এবং সেখানে আধুনিক শিক্ষা ব্যবস্থা মেনে পঠনপাঠন চলে সে কথা বলেন এই মাদ্রাসার অধ্যক্ষ হাফিজ নাজরে আলাম। উত্তরপ্রদেশে শিক্ষা পর্ষদের অন্তর্গত এই মাদ্রাসা। তাঁর মতে, সংস্কৃতের পাঠের ফলে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি আরও দৃঢ় হবে। পঞ্চম শ্রেণি থেকে সংস্কৃত আবশ্যিক বিষয় হিসাবে পড়ানো হয়।

গত কয়েক বছর ধরেই রাজ্যের মাদ্রাসাগুলির আধুনিকীকরণ হচ্ছে। সেখানে এনসিইআরটির পাঠ্যবইও পড়ানো হচ্ছে। বর্তমানে উত্তরপ্রদেশে ১৯ হাজার স্বীকৃত এবং ৫৬০ সাহায্যপ্রাপ্ত মাদ্রাসা রয়েছে।

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন