মহামারি শুরু হওয়ার পর থেকে ওড়িশার এই গ্রামে কেউ কোভিডে আক্রান্ত হননি

0
গ্রামের বাসিন্দাদের সঙ্গে কথা বলছেন জেলাশাসক। ছবি: টাইমস অব ইন্ডিয়ার সৌজন্যে

খবর অনলাইন ডেস্ক: ২০২০-র শুরুর দিকে ছড়িয়েছিল করোনাভাইরাস অতিমারি। এখন দেশজুড়ে চলছে করোনা সংক্রমণের দ্বিতীয় ঢেউ। যা আছড়ে পড়েছে গ্রামাঞ্চলেও। তবে মহামারি শুরু হওয়ার পর থেকে ওড়িশার একটি গ্রামে কেউ কোভিডে আক্রান্ত হননি।

করোনার দ্বিতীয় ঢেউ মোকাবিলায় বাড়তি নজর দেওয়া হয়েছে গ্রামাঞ্চলে। কেন্দ্র এবং রাজ্য সরকারগুলি জেলা স্তরে করোনা মোকাবিলায় একাধিক পদক্ষেপ নিচ্ছে। সে দিক থেকে ওড়িশার গঞ্জম জেলার খালিকোট ব্লকের দানাপুর পঞ্চায়েতের অন্তর্গত করণজারা গ্রামটি এখন ‘মডেল’ হয়ে উঠেছে।

ইন্ডিয়া টুডের রিপোর্ট অনুযায়ী, এই গ্রামটিতে ২৬১টি পরিবারের প্রায় ১,২৩৪ জন বসবাস করেন। তবে উল্লেখযোগ্য ভাবে মহামারির শুরু হওয়ার পর থেকে এখনও এক জন ব্যক্তিও করোনা সংক্রমিত হননি।

এর আগে গত জানুয়ারি মাসে প্রশাসনের তরফে গ্রামে করোনা নমুনা পরীক্ষা চালানো হয়। ৩২ জনের নমুনা পরীক্ষা হলেও কোনো আক্রান্তের হদিশ মেলেনি। তার পর থেকেই নিয়মিত বাড়ি-বাড়ি ঘুরে পর্যবেক্ষণ চালাচ্ছেন আশা এবং অঙ্গনওয়াড়িকর্মীরা।

সম্প্রতি জেলাশাসক বিজয় কুলাঙ্গে গ্রামটি পরিদর্শন করেন। সেখানকার বাসিন্দাদের সঙ্গে কথা বলেন। তিনি সংবাদ মাধ্যমের কাছে জানিয়েছেন, “গ্রামবাসীরা কোভিডবিধি সম্পর্কে খুব সচেতন। মহিলা ও শিশু-সহ প্রত্যেক গ্রামবাসী মাস্ক পরেন এবং যখনই বাড়ি থেকে বের হয় তখন শারীরিক দূরত্ব অনুসরণ করেন”।

করণজারা গ্রামের একটি সংগঠনের সভাপতি ত্রিনাথ বেহেরা বলেছেন, “মহামারির শুরু থেকেই প্রশাসনের নির্দেশ অনুসারে আমরা গ্রামবাসীদের মাস্ক পরতে এবং শারীরিক দূরত্বের নিয়মগুলি অনুসরণ করার কথা বলে আসছি। এ ব্যাপারে ব্যাপক সচেতনতা বাড়িয়ে তুলেছি”।

তিনি জানান, গ্রামের বেশ কিছু যুবক মুম্বইয়ে কাজ করেন। গত বছর তাঁদের অনেকেই বাড়িতে আসেননি। যে ক’জন এসেছিলেন, তাঁরাও নিয়ম মেনে ১৪ দিন সরকারি কোয়ারান্টাইনে ছিলেন। উল্লেখযোগ্য় ভাবে মহামারি শুরু হওয়ার পর থেকে গ্রামের কোনো বাড়িতেই কোনো অনুষ্ঠান হয়নি। গ্রামের যুবকরা নিয়মিত পরিচ্ছন্নতার কর্মসূচি নিয়ে চলেছেন।

আরও পড়তে পারেন: Corona Lockdown: দিল্লিতে লকডাউনের মেয়াদ আরও এক সপ্তাহ বাড়িয়ে অরবিন্দ কেজরিওয়াল বললেন, ‘আনলক হতে পারে, যদি…’

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন