thousands of frog sacrificed in want of rain

ওয়েবডেস্ক: বৃষ্টির জন্য প্রার্থনায় ‘বলির পাঁঠা’ করা হচ্ছে ব্যাঙকে। কয়েক মাস আগে বৃষ্টির দাবিতে মধ্যপ্রদেশে দু’টি ব্যাঙের বিয়ে দেওয়া হয়। সেখানে উপস্থিত ছিলেন বিজেপির এক মন্ত্রীও। তবে এ বার যা ঘটল সেটা আরও সাংঘাতিক। বৃষ্টিকে ডেকে আনার জন্য বিহারে মেরে ফেলা হল কয়েক হাজার ব্যাঙ।

বিহারের এ বার বর্ষার অবস্থা খুব খারাপ। এখনও পর্যন্ত রাজ্যে ৪২ শতাংশ ঘাটতি চলছে বর্ষার। এই পরিস্থিতিতে বৃষ্টির দেবতাকে তুষ্ট করার জন্য এই নৃশংস কাণ্ডের ওপরেই ভরসা রাখলেন বিহারের পাঁচ জেলার কৃষকরা।

গয়া, জেহানাবাদ, ঔরঙ্গাবাদ, নওয়াদা এবং অরওয়াল জেলায় ব্যাঙের ওপরে এই হত্যালীলা চালানো হয়েছে।

কী ভাবে এই কুকীর্তি করা হয় সেটা বুঝিয়েছেন এই হত্যালীলায় অংশগ্রহণ করা কৃষক বলিরাম সিংহ। তাঁর কথায়, প্রথমে গ্রামের মহিলারা মাটি খুঁড়ে ছোট্ট কুয়োর মতো তৈরি করবেন। তার পর সেই কুয়ো জল দিয়ে ভরাট করে দেওয়া হবে। এর পর স্থানীয় ঝোপঝাড়, জলাশয় থেকে ব্যাঙ ধরে এনে সেই কুয়োয় ফেলে দেওয়া হবে। তার ওপরে মাটি চাপা দিয়ে মেরে ফেলা হবে ব্যাঙগুলিকে।

এখানেই শেষ নয়। এর পরে মৃত ব্যাঙগুলি দিয়ে একটা মালা তৈরি করা হবে। সেই মালা পরবেন গ্রামের একজন পুরুষ। তার পর তিনি অশ্রাব্য ভাষায় গালিগালাজ করবেন। যত বেশি গালিগালাজ, তত বেশি বৃষ্টির সম্ভাবনা, এমনই জানান বলিরাম। বিহারে এই কুসংস্কারের প্রথা বহু কাল আগে থেকেই চলে আসছে।

বৃষ্টির চাহিদায় এই ধরনের কুসংস্কারাচ্ছন্ন কাজকর্ম কয়েক মাস ধরেই হচ্ছে। কয়েক সপ্তাহ আগে বৃষ্টির দেবতাকে ‘তুষ্ট’ করার জন্য চাষের জমি খুঁড়ে দিয়েছিলেন দুই বোন। তার ওপরে ব্যাঙের বিয়ে তো আছেই।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here