চেন্নাই: নেতানেত্রীকে নিয়ে উন্মাদনা তামিল রাজনীতির চেনা ছবি। ১৯৮৭ সালে এম জি রামচন্দ্রনের মৃত্যুর পর আত্মহত্যা করেছিলেন ৫৮ জন রাজ্যবাসী। তেমন কোনো বিপর্যয় এবার এখনো হয়নি। তবে মৃত্যু এড়ানো গেল না। প্রিয় আম্মার মৃত্যু সংবাদ পেয়ে মারা গেলেন ৩ রাজ্যবাসী। অন্য দিকে দু’জন আত্মহত্যা করতে গিয়ে ধরা পড়ে গেলেন।

সোমবার টেলিভিশনে মুখ্যমন্ত্রীর মৃত্যু সংবাদ পেয়ে সিঙ্গানালুড়ের ৬৫ বছরের এক চিত্র শিল্পীর হার্ট অ্যাটাক হয়। হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার আগেই তাঁর মৃত্যু হয়। 

থুডিয়ালুরের পালানিয়াম্মাল এআইএডিএমকের এনজিও কলোনির জেনারেল সেক্রেটরি। আম্মার মৃত্যু সংবাদ শুনেই হৃদরোগে আক্রান্ত হন তিনি। এবং মৃত্যু হয় তাঁর।বয়স হয়েছিল ৬২ বছর।  

তৃতীয় মৃত্যুর ঘটনা ঘটে, ৩৮ বছরের রাজার। তামিলনাড়ুর শ্রমিক। জয়ার মৃত্যুর খবর শুনে বসে বসেই প্রাণ যায় তাঁর। রাজার স্ত্রী জরুরি পরিষেবায় কল করেন। কিন্তু লাভ হয়নি।

এ ছাড়াও জয়ললিতার মৃত্যুর খবরে দু’জন আত্মহত্যার চেষ্টা করেন। কিন্তু সফল হতে পারেননি।  কুনিয়ামুথুরের ৫০ফুট উঁচু টাওয়ার থেকে এক জন ঝাঁপ দেওয়ার চেষ্টা করেন। কিন্তু পুলিশ দেখতে পেয়ে তাঁকে নামিয়ে আনে। অন্য ঘটনাটি ঘটে আননুরে। এক জন এআইএডিএমকে কর্মী আত্মহত্যার চেষ্টা করেন। আপাতত তিনি সরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here